তফশিল ঘোষণার সাথে সাথে দেশ উত্তাল : নিহত ২

মাথাভাঙ্গা ডেস্ক: সংসদ নির্বাচনের তফশিল ঘোষণার সাথে সাথেই সারাদেশ উত্তাল হয়ে পড়েছে। এর উত্তাপে গতরাতেই প্রাণ হারিয়েছে ঢাকার এক রিকশাচালক। কুমিল্লায় নিহত হয়েছে ছাত্রদলকর্মী। কুমিল্লায় বিক্ষোভ মিছিল বের করলে বিএনপি নেতাকর্মীদের সঙ্গে পুলিশের সংঘর্ষে ছাত্রদলকর্মী দেলোয়ার নিহত হয়। এছাড়া ৫ জন গুলিবিদ্ধ হয়েছে। সারাদেশে অসংখ্য গাড়ি ভাঙচুর করা হয়েছে। বিভিন্ন স্থানে ককটেল বিস্ফোরণ হয়েছে। পুলিশের সাথে সংঘর্ষ হয়েছে। পুলিশ ফাঁড়িতেও হামলা চালিয়েছে আন্দোলনকারীরা। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রাখতে রাজধানী ও রাজশাহীসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে বিজিবি মোতায়েন করা হয়েছে।

ঘোষিত তফশিল প্রত্যাখ্যান করে আজ মঙ্গলবার ভোর ৬টা থেকে বৃহস্পতিবার ভোর ৬টা পর্যন্ত ৪৮ ঘণ্টার রাজপথ-রেলপথ-নৌপথে অবরোধ কর্মসূচির ঘোষণা দিয়েছে বিএনপি নেতৃত্বাধীন ১৮ দলীয় জোট। এর আগে সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় প্রধান নির্বাচন কমিশনার কাজী রকিবউদ্দীন আহমদ দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তফশিল ঘোষণা করার পর রাত ৮টার দিকে নিজ কার্যালয়ে ১৮ দলীয় জোটের নেতাদের নিয়ে বৈঠক করেন বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া।
মির্জা ফখরুল বলেন, দেশবাসীর প্রত্যাশা, আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের আহ্বান এবং সব রাজনৈতিক দলের দাবি উপেক্ষা করে যে তফশিল ঘোষণা করেছে নির্বাচন কমিশন, সেটা তারা প্রত্যাখ্যান করছেন। রাজনৈতিক সমঝোতা না হওয়ার আগ পর্যন্ত ঘোষিত তফশিল স্থগিত করারও আহ্বান জানান তিনি। বিএনপির মুখপাত্র বলেন, তফশিল ঘোষণা করে ইসি চরম কাণ্ডজ্ঞানহীনতার পরিচয় দিয়েছে। বিএনপি একটি প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ নির্বাচনে অংশ নিতে চায়; কোনো দলীয় সরকারের অধীনে নির্বাচনে অংশ নেবে না। তিনি কোনো প্রহসনের নির্বাচনের সব ধরনের প্রক্রিয়ায় অংশ না নিতে দেশবাসীর প্রতি আহ্বান জানিয়ে বলেন, একতরফা নির্বাচনের তফশিল ঘোষণা করায় তাদের আন্দোলন নতুন মাত্রায় উন্নীত হয়েছে। সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে মির্জা ফখরুল বলেন, এ কর্মসূচি শেষ হওয়ার পর সংলাপের বিষয়ে জানানো হবে এবং নতুন কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে।
সোমবার সন্ধ্যায় দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তফশিল ঘোষণার পরপরই রাজধানীর বিভিন্ন স্থানে ককটেল বিস্ফোরণ, যানবাহন ভাঙচুর এবং অগ্নিসংযোগ করে দুর্বৃত্তরা। সন্ধ্যা থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত ডেমরা, সায়েদাবাদ, বাংলাবাজার, তুরাগ ও ফকিরাপুলের অন্তত ১১টি যানবাহনে অগ্নিসংযোগ করা হয়। ওদিকে, গতকাল রাত ৮টার দিকে রাজধানীর বিভিন্ন স্থানে পর্যাপ্ত সংখ্যক বিজিবি সদস্য মোতায়েন করা হয়। তারা আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যদের সাথে নিরাপত্তার দায়িত্ব পালন করবেন বলে জানিয়েছেন বিজিবির মহাপরিচালক মেজর জেনারেল আজিজ আহমেদ।

জানা গেছে, তফশিল ঘোষণার পরপরই সায়েদাবাদ বাসটার্মিনাল এলাকায় হঠাত করেই যানবাহনের ওপর চড়াও হয় বিএনপি-জামায়াতের কর্মীরা। এ সময় তারা কয়েকটি যানবাহনে ভাঙচুর চালিয়ে একটি মালবাহী ট্রাকে অগ্নিসংযোগ করে। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসকর্মীরা ঘটনাস্থলে পৌঁছানোর আগেই ট্রাকটির সামনের অংশ ভস্মীভূত হয়ে যায়। পরে স্থানীয়রা আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। প্রায় একই সময় তুরাগের একটি যাত্রীবাহী বাসে আগুন দেয় দুর্বৃত্তরা। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিস টঙ্গি স্টেশন থেকে ফায়ার সার্ভিসকর্মীরা গিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। আগুনে বাসের প্রায় ১০ লাখ টাকার ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে বলে ফায়ার সার্ভিস নিয়ন্ত্রণকক্ষ থেকে জানানো হয়েছে। সন্ধ্যা ৭টার দিকে মহাখালী বাস টার্মিনাল এলাকায় পরপর দুটি ককটেলের বিস্ফোরণ ঘটায় দুর্বৃত্তরা। এতে বাংলা নিউজের ফটোসাংবাদিক সায়মন আহত হন। খবর পেয়ে দ্রুত ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে পুলিশ। এ সময় সেখানে শটগানের ফাঁকা গুলিও ছোড়া হয় বলে প্রত্যক্ষদর্শীরা দাবি করলেও পুলিশ তা অস্বীকার করেছে। রাত সাড়ে ৮টার দিকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসি এলাকায় ৫টি ককটেলের বিস্ফোরণ ঘটায় দুর্বৃত্তরা।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, মোটরসাইকেলযোগে এসে দু যুবক ককটেলের বিস্ফোরণ ঘটিয়ে দ্রুত পালিয়ে যায়। তবে এতে কোনো হতাহতের ঘটনা ঘটেনি। রাত সাড়ে ৮টার দিকে ডেমরা ও সায়েদাবাদ এলাকায় একযোগে ৭টি যানবাহনে আগুন দেয় বিএনপি এবং জামায়াত-শিবিরের কর্মীরা। তারা ডেমরায় একটি লেগুনা এবং একটি বাসে আগুন দেয়। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। প্রায় একই সময় সায়েদাবাদ বাস টার্মিনাল এলাকায় ৫টি বাসে আগুন দেয় দুর্বৃত্তরা। পরে সেখানে উপস্থিত শ্রমিকরা আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে বলে জানিয়েছেন যাত্রাবাড়ী থানার ওসি রফিকুল ইসলাম।

পুরোনো ঢাকার বাংলাবাজার এলাকায় তফশিলের বিরোধীতা করে একটি ঝটিকা মিছিল বের করে জামায়াত-শিবিরের ক্যাডাররা। এ সময় তারা কয়েকটি যানবাহন ভাঙচুর করে এবং একটি লেগুনা ও কাভার্ডভ্যানে আগুন ধরিয়ে দেয়। ফায়ার সার্ভিসকর্মীরা ঘটনাস্থলে পৌঁছার আগেই স্থানীয়দের সহায়তায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে গাড়ির লোকজন। রাত পৌনে ৯টার দিকে পল্টন এলাকায় পুলিশের গাড়ি লক্ষ্য করে পরপর কয়েকটি ককটেলের বিস্ফোরণ ঘটায় দুর্বৃত্তরা। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে এ সময় কয়েক রাউন্ড শটগানের ফাঁকা গুলি ছোড়ে পুলিশ। ওদিকে, তফশিল ঘোষণার পর শ্যামপুর এলাকায় আনন্দ মিছিল বের করে স্থানীয় ছাত্রলীগ। মিছিলটি শ্যামপুরের কাঠেরপুল এলাকায় পৌঁছুলে তাতে হামলা চালায় শিবিরের ক্যাডাররা। এ সময় দু পক্ষের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে এ সময় কয়েক রাউন্ড শটগানের গুলি ছোড়ে পুলিশ। এ ঘটনার পর ওই এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

এদিকে, রাত পৌনে ১০টার দিকে ফার্মগেট পুলিশবক্সের কাছে পুলিশের একটি গাড়িতে আগুন ধরিয়ে দেয় দুর্বৃত্তরা।

জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তফশিল ঘোষণা করার পরপরই রাজশাহীতে একটি পুলিশ ফাঁড়িতে হামলা চালিয়েছে ১৮ দলীয় জোটের কর্মীরা। এতে দু পুলিশ আহত হয়েছে। এ সময় পুলিশের সাথে ১৮ দলীয় জোটের কর্মীদের ব্যাপক সংঘর্ষ হয়। এতে অন্তত ২৫ আহত হয়েছে। এছাড়া রাজশাহী নির্বাচন কমিশন অফিসে বোমা হামলা চালানো হয়েছে। প্রধান নির্বাচন কমিশনারের ভাষণ শেষ হওয়ার পরপরই নগরীর মালোপাড়া বিএনপি কার্যালয়ের সামনে থেকে বিক্ষোভ মিছিল বের করে ১৮ দলীয় জোটের নেতাকর্মীরা। মিছিল নিয়ে তারা ১০০ গজ দূরে মালোপাড়া পুলিশ ফাঁড়িতে হামলা চালায়। বগুড়া শহরের কেন্দ্রস্থল সাতমাথাসহ বিভিন্ন স্থানে ব্যাপক বোমাবাজি, গাড়ি ভাঙচুর এবং মহাসড়ক অবরোধ করে ১৮ দলীয় জোটের নেতাকর্মীরা। শহরের মাটিডালি এলাকায় গাড়িতে আগুন দেয়ার সময় পুলিশ জ্বালানি তেলসহ তিনজনকে আটক করে। রাতেই বগুড়ায় তিন প্লাটুন বিজিবি মোতায়েন করা হয়। কুমিল্লার চৌদ্দগ্রাম উপজেলার ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের বিভিন্ন এলাকায় গাড়ি ভাঙচুর এবং ককটেলের বিস্ফোরণ ঘটায় জামায়াত-শিবিরের নেতাকর্মীরা। সোমবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে উপজেলার মিয়াবাজার, চিওড়া, হায়দারপুল ও বাতিসা এলাকায় এই ভাঙচুর এবং বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। চট্টগ্রাম নগরীর বায়েজিদ বোস্তামি থানার অক্সিজেন এলাকায় গাড়ি ভাঙচুর করেছে জামায়াত-শিবির। এছাড়া আন্দরকিল্লা মোড়ে ককটেলের বিস্ফোরণ ঘটেছে। কক্সবাজার শহরে দফায় দফায় ককটেল বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটেছে। রাত ৮টার দিকে শহরের টেকপাড়াস্থ বার্মিজ মার্কেট এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। লক্ষ্মীপুরের কমলনগরে বিক্ষোভ করেছে ১৮ দলীয় জোটের নেতাকর্মীরা। প্রধান নির্বাচন কমিশনারের জাতির উদ্দেশে দেয়া ভাষণ শেষ হওয়ার আগেই রাত পৌনে ৮টার দিকে উপজেলা সদরের হাজিরহাট বাজারে এ ঘটনা ঘটে। সাতক্ষীরা দেবহাটার গরানবাড়িয়া এলাকায় জামায়াত-শিবিরের একটি মিছিল থেকে স্থানীয় গরানবাড়িয়া পুলিশফাঁড়িতে হামলা চালানো হয়। এ সময় জামায়াত-শিবিরের সাথে পুলিশের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে পুলিশ ৫০ রাউন্ড শটগানের গুলি ছোড়ে। এতে ২০ জন কর্মী আহত হয়েছে বলে দাবি করেছেন জামায়াতের উপজেলা সেক্রেটারি নূর মোহাম্মদ। পাবনায় বিক্ষোভ মিছিল করেছে জেলা বিএনপি এবং এর অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীরা। এ সময় মিছিল থেকে বেশ কয়েকটি ককটেলের বিস্ফোরণ ঘটানো হয় এবং ট্রাক ভাংচুর করা হয়। এ ঘটনায় ৫ জন আহত হয়েছে; এবং একজনকে আটক করেছে পুলিশ। চাঁদপুর শহরের বিভিন্ন স্থানে ককটেল বিস্ফোরণ, ফরিদগঞ্জে অটোরিকশায় আগুন ও যানবাহন ভাঙচুর এবং হাজীগঞ্জে সড়ক অবরোধসহ বেশ কিছু যানবাহন ভাঙচুর করে বিএনপির নেতাকর্মীরা। এছাড়া দায়িত্বে অবহেলার কারণে হাজীগঞ্জ থানার ওসি দেওয়ান আবুল হোসেনকে প্রত্যাহার করা হয়েছে।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *