টাঙ্গাইলে প্রশিক্ষণকালে মর্টার শেল বিস্ফোরণে সেনা ও বিজিবির ৫ সদস্য নিহত

স্টাফ রিপোর্টার: টাঙ্গাইলের ঘাটাইল শহীদ সালাহ উদ্দিন সেনানিবাসের বাইরে ফিল্ড ফায়ারিং রেঞ্জে প্রশিক্ষণ চলাকালে মর্টার শেল বিস্ফোরণে ৫ জন নিহত হয়েছেন। তাদের মধ্যে দুজন সেনা কর্মকর্তা ও বিজিবি সদস্য তিনজন। নিহত ব্যক্তিরা হলেন- সেনাবাহিনীর সিনিয়র ওয়ারেন্ট অফিসার পারভেজ (২০ ইস্ট বেঙ্গল) ও সিনিয়র ওয়ারেন্ট অফিসার মঞ্জুর (৪ ইস্ট বেঙ্গল) এবং বিজিবির সদস্য আবু সুফিয়ান (৩ বিজিবি), একরাম (৩ বিজিবি) ও ল্যান্স কর্পোরাল মো. আলী (৩ বিজিবি)।
এ ঘটনায় আহত হয়েছেন ১১ জন। আশঙ্কাজনক অবস্থায় সাতজনকে ঢাকার সম্মিলিত সামরিক হাসপাপাতলে ভর্তি করা হয়েছে।

গতকাল বুধবার বেলা ১২টার দিকে এ দুর্ঘটনাটি ঘটে। দুর্ঘটনার খবর পাওয়ার সাথে সাথে হেলিকপ্টারযোগে বিজিবির মহাপরিচালক মেজর জেনারেল আজিজ আহমেদসহ বিজিবি ও সেনাবাহিনীর ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা ঘটনাস্থলে ছুটে যান। এদিকে এ দুর্ঘটনায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও সাবেক রাষ্ট্রপতি হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ শোক জানিয়েছেন। বিজিবির মহাপরিচালক মেজর জেনারেল আজিজ আহমেদ বলেন, ঘটনার পর পরই নিহত ও আহতদের হেলিকপ্টারযোগে সিএমএইচ-এ নিয়ে আসা হয়। আহতদের সর্বোচ্চ চিকিৎসাসেবা দেয়া হবে জানিয়ে তিনি বলেন, আশঙ্কাজনক সাতজনকে সিএমএইচ-এ এবং অন্য চারজনকে পিলখানায় বিজিবি হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। ময়নাতদন্তের জন্য নিহত ৫ জনের লাশ রাজধানীর স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালমর্গে পাঠানো হয়। আজ বিজিবির সদর দফতর পিলখানায় নিহতদের জানাজা শেষে স্বজনদের কাছে লাশ হস্তান্তর করা হবে। প্রতি বছরের মতো এবারও বিজিবির বিভিন্ন ইউনিটের ভারী অস্ত্র প্রশিক্ষণ দেয়া হচ্ছিলো। বুধবার সকাল থেকে প্রশিক্ষণ শুরু হয়। প্রশিক্ষণের অংশ হিসেবে প্রথমে ৬০ মিলিমিটারের মর্টার থেকে তিনটি গোলা ছোঁড়া হয়। পরে ৮২ মিলিমিটারের ৪র্থ গোলাটি মর্টারে লোড করার পর ভেতরেই সেটি বিস্ফোরিত হয়। এতে ওই ৫ জন নিহত হন। তিনি বলেন, দায়িত্বরত অবস্থায় দুর্ঘটনায় বাহিনীর কোনো সদস্য মারা গেলে প্রাথমিকভাবে মহাপরিচালকের পক্ষ থেকে প্রত্যেকের পরিবারকে ৫ লাখ টাকা করে দেয়া হয়। তাছাড়া সরকারি নিয়ম অনুযায়ী সব সুযোগ-সুবিধা তারা পাবেন। তিনি নিহতদের শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানান। আইএসপিআর জানায়, ঘাটাইল ফিল্ড ফায়ারিং রেঞ্জে মর্টার ফায়ারিঙের সময় দুর্ঘটনাবশত মর্টার শেল বিস্ফোরণে নিহত ৫ জনের মধ্যে দুজন সেনা সদস্য ফায়ারিং রেঞ্জ রক্ষণাবেক্ষণের দায়িত্বে ছিলেন। এ সময় এক অফিসার ও ১০ বিজিবি সদস্য আহত হয়েছেন।

আহতদের প্রথমে ঘাটাইল সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে নেয়া হয়। সেখান থেকে হেলিকপ্টারে করে ঢাকার সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে নিয়ে আসা হয় তাদের। ঘাটাইল থানার ওসি ফজলুল কবির জানান, দিনাজপুর সেক্টর থেকে বিজিবিরি একটি দল ফায়ারিং প্রশিক্ষণ নিতে ঘাটাইল সেনানিবাসে এসেছিলো। ফিল্ড ফায়ারিং রেঞ্জে তাদের প্রশিক্ষণ চলছিলো।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *