ঝিনাইদহে ভোট কারচুপি ও অনিয়মের অভিযোগ আ.লীগ নেতার

 

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি: ঝিনাইদহ সদর উপজেলার মধুহাটী ইউনিয়নের একটি কেন্দ্রে ভোট কারচুপি ও ব্যপক অনিয়মের অভিযোগ করলেন আ.লীগ নেতা। গতকাল বুধবার দুপুরে ঝিনাইদহ প্রেসক্লাবে এক সাংবাদিক সম্মেলনের মাধ্যমে কারচুপির স্বপক্ষে কেন্দ্রে পড়ে থাকা ব্যালট পেপারসহ বিভিন্ন তথ্য উপাত্ত তুলে ধরেন মিজানুর রহমান মিনা নামে মেম্বর প্রার্থী। তিনি মধুহাটী ইউনিয়নের ৯ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি বলে দাবি করেন।

লিখিত বক্তব্যে তিনি জানান, গত ২৮ মে মধুহাটি ইউনিয়ন পরিষদের নির্বাচনে মধুহাটী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে দায়িত্বরত প্রিসাডিং অফিসার এ এইচ এম হুমায়ুন কবির তার প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী রবিউল ইসলামের (তালা মার্কা) পক্ষ নিয়ে কাজ করেছেন। এ জন্য ভোটগ্রহণ শেষে প্রিসাইডিং অফিসার একবার ভোট গণনা করে তড়িঘড়ি করে ভোটের ফলাফল ঘোষণা করেন। এতে বেসরকারিভাবে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী রবিউলকে ২ ভোট বেশি দেখিয়ে বিজয়ী ঘোষণা করা হয়। ভোট গণনা প্রক্রিয়ায় সন্দেহ থাকায় কেন্দ্রে নিয়োজিত মিজানুর রহমান মিনরা পোলিং এজেন্ট আলতাফ হোসেন আরেকবার ভোট গণনা করার জন্য প্রিসাইডিং অফিসারকে অনুরোধ জানান। কিন্তু প্রিসাইডিং অফিসার তাতে কর্ণপাত করেননি। এছাড়া ভোট গণণা শেষে বলা হয় মোট ৮০ ভোট বাতিল হয়েছে। এর মধ্যে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীর (তালা মার্কা) ১৯ ও মিজানুর রহমান মিনার (ভ্যানগাড়ি মার্কা) ৬১ বাতিল ভোট রয়েছে।

ভোট গণনাকালে প্রিসাইডিং অফিসার মেম্বার প্রার্থী মিজানুর রহমান মিনার পোলিং এজেন্টকে বাতিল ভোট দেখাননি। বাতিল ভোট দেখানোর জন্য পোলিং এজেন্ট অনুরোধ জানালে প্রিসাইডিং অফিসার দেখানোর আশ্বাস দিয়েও পরে আর দেখাননি। এছাড়া ভোট গণনার আগেই প্রিসাইডিং অফিসার কৌশলে রেজাল্ট শিটে মিজানুর রহমান মিনার পোলিং এজেন্টের স্বাক্ষর নিয়ে নেন। তিনি বলেন, ভোট গণনার ধরণ ও বাতিল ভোট নিয়ে প্রার্থী মিজানুর রহমান মিনার পোলিং এজেন্ট আপত্তি করলে প্রিসাইডিং অফিসার তা আমলে নেন নি।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *