জোড়গাছা গ্রামে স্ত্রীকে হত্যাকরে স্বামীর আত্মগোপন : আমিরুলকে ধরতে পারেনি পুলিশ

 

ঘোলদাড়ি প্রতিনিধি: আলমডাঙ্গার জোড়গাছা গ্রামের গৃহবধূ দু সন্তানের জননী হত্যার ৩ মাস হতে চললেও গ্রেফতার হয়নি ঘাতক স্বামীসহ হত্যামামলার কেউ। নিহত মহিরনের ভাই নাসিরের দাবি, পুলিশ আসামিদের কাছ থেকে আর্থিক সুবিধা নিয়ে আসামিদের গ্রেফতার করছে না।

আলমডাঙ্গার নাগদাহ ইউনিয়নের জোড়গাছা গ্রামের গৃহবধূ মহিরন হত্যার প্রায় ৩ মাস পেরুতে চললেও থানা পুলিশ কাউকে গ্রেফতার করতে পারেনি। ঘটনার পর দিন থেকেই মহিরনের ঘাতক স্বামী আমিরুল পালিয়ে গেলেও অপর আসামিরা বাড়িতে থাকলেও অজ্ঞাত কারণে থানা পুলিশ এজাহারভুক্ত আসামিদের গ্রেফতার করছে না বলে মামলার বাদী মহিরনের ভাই নাসির অভিযোগ তুলেছেন।

নাসির অভিযোগ করে বলেন, মহিরনের স্বামী আমিরুল নেশার টাকার জন্য তার স্ত্রীকে বিভিন্ন এনজিও থেকে ঋণ করাতো। আর ঋণ না করলে তাকে অমানুষিক নিযার্তন করতো। ঘটনার দিনও ছেলের পাঠানো চার হাজার টাকা নিয়ে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে কথা কাটাকাটি হয় এবং ওই দিন সকালে গরু ও বাড়ির ভুট্টা বিক্রি করে। তারপর থেকে মহিরন ও আমিরুল কাউকেই খুঁজে পাওয়া যাচ্ছিলো না। গত ২৮ মে হঠাত করেই পায়খানার ট্যাঙ্কির মধ্যে মহিরনের লাশ দেখতে পায় প্রতিবেশীরা। মহিরনের স্বামী আমিরুল, শাশুড়ি সবজান ও ভাসুর নজরুলকে আসামি করে আলমডাঙ্গা থানায় একটি হত্যামামলা দায়ের করা হয়।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *