জীবননগর আন্দুলবাড়িয়ায় মোটরসাইকেল দুর্ঘনায় নিহত ১

 

স্টাফ রিপোর্টার: জীবননগর লক্ষ্মীপুর গ্রামের জনি নামে এক যুবক সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত হয়েছেন। এ সময় সাথে থাকা তার মামাতো ভাই শাকিল গুরুত আহত হয়। গতকাল বুধবার রাত ৮টার দিকে দ্রুতগতিতে মোটরসাইকেল যোগে যাওয়ার সময় আন্দুলবাড়িয়া স্টেশন রোডে এ দুর্ঘটনা ঘটে। স্থানীয়রা আহতদের উদ্ধার করে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে নেয়। এ সময় কর্তব্যরত চিকিৎসক জনিকে মৃত ঘোষণা করেন।

শাকিলের মা জানান, জনি মাসখানেক আগে মামার বাড়ি ছোট শলুয়া গ্রামে আসে ট্রাক্টর চালানো শেখার জন্য। আর জনি দীর্ঘ দিন ধরে জেলার দেহাটি গ্রামে ভাড়ায় বসবাস করে আসছে। তারা রাত ৮টার দিকে মোটরসাইকেল যোগে দেহাটি থেকে ছোটশলুয়া আসছিলো।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, আন্দুলবাড়িয়া স্টেশন রোডে যখন পৌঁছায় তারা বেপোয়ারা গতিতে মোটরসাইকেল চালচ্ছিলো। এ সময় নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে রাস্তার পাশে থাকা গাছর সাথে ধাক্কা মারে। জনি ও শাকিল দুজনই গুরুতর আহত হয়। পরে এলাকাবাসী তাদের উদ্ধার করে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপতালে ভর্তি করে। এ সময় জনির নাক, মুখ দিয়ে অনবরত রক্তক্ষরণ হচ্ছিলো। তার কিছুক্ষণ পরে সে মারা যান। জরুরি বিভাগের কর্তব্যরত চিকিৎসক জনিকে ঢাকা মেডিকেল কলেজে রেফার করেন। এ সময় ওয়ার্ডে নিলে সার্জরী কনসালট্যান্ট তারিক হাসান শাহীন জানান তাদের দুজনের মুখ দিয়েই মদের গন্ধ পাওয়া যায়। তিনি আরও জানান, তার মাথায় ও বুকে আঘাত লাগার কারণে রক্ত ক্ষরণ হয় বলে তিনি ধারণা করেন। এদিকে শাকিলের মাথায় আঘাত লাগায় তার অবস্থাও গুরুতর। তাকে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তবে সে মাঝে মাঝেই অচেতন হয়ে যাচ্ছে। এ বিষয়ে সার্জরী কনসালট্যান্ট তারিক হাসান শাহীন জানান, এটা তার অতিরিক্ত মদ্যপানের কারণে হতে পারে তাছাড়া তার মাথায় আঘাতের কারণেও হতে পারে।

 

 

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *