জীবননগর অনন্তপুরে যৌতুকের দাবিতেস্ত্রীকে হত্যা অপচেষ্টা

 

জীবননগর ব্যুরো: জীবননগর উপজেলার আন্দুলবাড়িয়া ইউনিয়নের অনন্তপুর গ্রামে যৌতুকের দাবিতে স্ত্রী মুন্নী আক্তারকে (২৪) ঘরের আড়ার সাথে রশির ফাঁস দিয়ে হত্যা অপচেষ্টা করা হয়েছে। গত বুধবার সকালে স্বামী শিপন আলী (২৮) ও তার পিতা-মাতা মিলে এ অপচেষ্টা করে বলে অভিযোগ। এ ব্যাপারে স্বামী ও শ্বশুর-শাশুড়িকে আসামি করে জীবননগর থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে এবং আহত মুন্নীকে উদ্ধার করে মহেশপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

মুন্নী পিতা ঝিনাইদহের মহেশপুর উপজেলার কৃষ্ণচন্দ্রপুর গ্রামের ওহিদুল ইসলামের অভিযোগ থেকে জানা যায়, ৬ বছর আগে তিনি তার মেয়ে মুন্নীকে জীবননগর উপজেলার অনন্তপুর গ্রামের আলী আহাম্মদের ছেলে শিপন আলীর সাথে বিয়ে দেন। বিয়ের পর শিপন ৩০ হাজার টাকা যৌতুক দাবি করে। তিনি এ যৌতুকের টাকাসহ দফায় দফায় ১ লাখ ৫০ হাজার টাকা যৌতুক দেন। এর পরও সম্প্রতি আবারও ২০ হাজার টাকা যৌতুক দাবি করলে তিনি তা দিতে অস্বীকার করেন। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে জামাতা শিপন আলী ও তার পিতা আলী আহাম্মদ এবং মা শাহার বানু গত বুধবার মুন্নীকে বেদম মারধর করার পর একপর্যায়ে গলায় রশির ফাঁস দিয়ে ঘরের আড়ার সাথে ঝুলিয়ে হত্যার অপচেষ্টা করে। মেয়ের চিৎকারে প্রতিবেশীরা ছুটে এসে তাকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে এবং তার পরিবারকে খবর পাঠায়। খবর পেয়ে ওহিদুল ইসলাম তার ভাই ও ছেলে নিয়ে মুন্নীকে নিতে এলে শিপন ও তার পরিবার তাদের ওপর হামলা করে। এতে মুন্নীর চাচা ওসমান আলী মারাত্মকভাবে আহত হন। একপর্যায়ে প্রতিবেশীদের সহায়তায় মুন্নী ও তার আহত চাচা ওসমানকে উদ্ধার করে মহেশপুর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এ ঘটনায় যৌতুকলোভী স্বামী শিপন তার পিতা আলী আহাম্মদ ও মা শাহার বানুকে আসামি করে বৃহস্পতিবার জীবননগর থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয় বলে জানা গেছে।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *