জামাই বাড়ি আগুনে পুড়ে অঙ্গার বৃদ্ধা আছিয়া খাতুন

চুয়াডাঙ্গার সরোজগঞ্জ বোয়ালিয়ায় মশার কয়েল থেকে অগ্নিকা-!

সরোজগঞ্জ প্রতিনিধি/স্টাফ রিপোর্টার: চুয়াডাঙ্গা সরোজগঞ্জ বোয়ালিয়ায় ভয়াবহ অগ্নিকা-ে অঙ্গার হয়েছেন ৭৫ বছরের বৃদ্ধা আছিয়া খাতুন। গতপরশু বৃহস্পতিবার রাত আনুমানিক সাড়ে ১১টার দিকে জামাই একই গ্রামের শাফায়েত আলীর বাড়িতে অগ্নিকা-ে তিনি পুড়ে নিহত হন।
আগুনে পুড়ে জীবন্ত দ্বগ্ধ হয়ে মারা যাওয়া বৃদ্ধা আছিয়া খাতুন বোয়ালিয়া পূর্বপাড়ার মৃত বরকত আলীর স্ত্রী। তিনি একই গ্রামের মেয়ে মোমেনা খাতুনের বাড়িতে থাকতেন। জামাই শাফায়েত হোসেন বলেছেন, রাতের খাবার খেয়ে আমরা যে যার মতো ঘুমিয়ে পড়ি। শাশুড়িও ঘুমিয়েছিলেন ঘরে। রাত সাড়ে ১১টার দিকে প্রচ- তাপে আমাদের ঘুম ভাঙে। আমরা দ্রুত ঘার থেকে বের হয়ে আগুন নেভানোর চেষ্টা করি। প্রতিবেশীরাও আগুন নেভানোর চেষ্টা করে। এক পর্যায়ে আগুন নেভানো সম্ভব হলেও জীবন্ত উদ্ধার করা যায়নি শাশুড়ি আছিয়া খাতুনকে। তিনি আগুনে পুড়ে নিহত হয়েছেন। ধারণা করা হচ্ছে, মশার কয়েলের আগুন থেকে তোষক লেপে লাগে, তার পরই লাগে পাশেই রাখা জ্বালানি কাঠে। অগ্নিকা-ে ঘরে রাখা নগদ ২৫ হাজার টাকাসহ মূলবান বহু মালামাল পুড়ে ভস্মীভুত হয়েছে।
প্রতিবেশীরা বলেছেন, রাতে আগুন লেগেছে দেখে আমরা যে যেখানে ছিলাম, সকলেই ছুটে গিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে নেয়ার চেষ্টা করি। আগুন নেভানো হয়। আগুন নেভানোর পর বৃদ্ধা আছিয়া খাতুনের মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়। খবর দেয়া হয় পুলিশে। রাতেই ভারপ্রাপ্ত পুলিশ সুপার সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। ঘটনা তদন্ত করেন এসআই শফিকুল ইসলাম। তিনি বলেন, আছিয়া খাতুনের ৬ মেয়ের সকলেই জানান, আগুনে পুড়ে তাদের মা মারা গেছেন। তা ছাড়া আছিয়া খাতুনের সাথে কারোর কোনো রকম বিরোধ দূরের কথা মনমালিন্যটুক্ওু ছিলো না। প্রতিবেশীরাও অভিন্ন সাক্ষ্য দেন। ফলে মানবিক দিক বিবেচনা করে ময়নাতদন্ত ছাড়াই লাশ দাফনের প্রয়োজনীয় পদক্ষেপের পক্ষে মতামত দেয়া হয়।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *