জরুরী প্রয়োজন ছাড়া ঘর থেকে বাইরে বের না হওয়ার আহবান

বখতিয়ার হোসেন বকুল: দামুড়হুদায় নভেল করোনা ভাইরাসের সংক্রমন ঠেকাতে সেনাবাহিনীর টহল জোরদার করা হয়েছে। মঙ্গলবার দুপুর ১২ টার দিকে দামুড়হুদা বাসস্ট্যান্ড এলাকায় সেনাবাহিনীর পক্ষ থেকে জনসচেতনতামূলক প্রচার-প্রচারণা চালানো হয়। অযাথা বাইরে ঘোরাঘুরি না করে সকলকে বাড়িতে থাকার আহবান জানিয়ে যশোর সেনা নিবাসের ক্যাপ্টেন ইমরান বলেন, আপনারা জরুরী প্রয়োজন ছাড়া কেউ বাড়ি থেকে বাইরে বের হবেন না। জরুরী প্রয়োজনে বাইরে আসলে অবশ্যই শারীরিক দুরুত্ব বজায় রাখবেন এবং অবশ্যই মাস্ক ব্যবহার করবেন। আপনারা বাড়িতে থাকুন। নিজে স্বুস্থ্য থাকুন এবং আপনার পরিবারকে স্বুস্থ্য রাখুন। তিনি পরিবারের সকলকে পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন থাকার আহবান জানিয়ে আরও বলেন, আপনার একটি ভূল পরিবারের জন্য তথা দেশের জন্য বড় ধরণের ক্ষতির কারণ হতে পারে। বিধায় সবাই বাড়িতে থাকুন। সবাই সচেতন হই, নিজে বাঁচুন-পরিবারকে বাঁচান। তিনি এ সময় জনসাধারণের মাঝে করোনা মোকাবেলায় করণীয় বিষয়ক লিফলেট বিতরণ করেন এবং মাস্ক না থাকা কয়েকজনের হাতে ওয়ান টাইম মাস্ক তুলে দেন।
এ ছাড়া সন্ধ্যা ৬ টা থেকে দোকানপাট বন্ধ রাখার আহবান জানিয়ে দামুড়হুদা মডেল থানা পুলিশের পক্ষ থেকে মাইকিং করা হয়েছে। মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১০ টার দিকে দামুড়হুদা বাজারসহ পুরো এলাকায় পুলিশ প্রশাসনের পক্ষ থেকে মাইকিং করা হয়। অযাথা বাইরে ঘোরাঘুরি না করে সকলকে বাড়িতে থাকার আহবান জানিয়ে দামুড়হুদা মডেল থানার এএসআই তৌহিদুজ্জামান বলেন, নভেল করোনা ভাইরাস সম্পর্কে নিজে সচেতন হউন এবং অপরকে সচেতন করুন। বিনা প্রয়োজনে কেউ বাড়ির বাইরে আসবেন না। যারা জরুরী প্রয়োজনে বাড়ির বাইরে আসবেন অবশ্যই মাস্ক ব্যবহার করবেন এবং সামাজিক নিরাপত্তা বজায় রাখতে শারীরিক দুরুত্ব বজায় রাখবেন। দামুড়হুদা মডেল থানার ওসি আব্দুল খালেক জানান, নভেল করোনা ভাইরাসের সংক্রমন ঠেকাতে জেলা পুলিশ সুপারের নির্দেশক্রমে মাইকিং করা হয়েছে।
এ দিকে নভেল করোনা ভাইরাসের প্রার্দূভাবে কর্মহীন হয়ে পড়া ভ্যানচালক, রিকশাচালক, সেলুন কারিগর, হোটেল কর্মচারি এ রকম স্বল্প আয়ের মানুষের মাঝে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ অব্যহত রাখা হয়েছে। মঙ্গলবার বিকেলে দামুড়হুদা উপজেলা নির্বাহী অফিসার এসএম মুনিম লিংকন কর্মহীন হয়ে পড়া ওই সমস্ত স্বল্প আয়ের মানুষের মাঝে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করেছেন। তিনি দামুড়হুদার পাটাচোরা, দেউলী এবং বিভিন্ন এলাকার কর্মহীন হয়ে পড়া প্রায় শতাধিক ব্যক্তির মাঝে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করেন। ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ কাজে সহযোগিতা করেন দামুড়হুদা উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. মহি উদ্দিন, দামুড়হুদা আব্দুল ওদুদ শাহ ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ কামাল উদ্দীন, উপজেলা পাট অফিসার রিয়াজুল ইসলাম প্রমূখ।
দামুড়হুদা উপজেলা নির্বাহী অফিসার এসএম মুনিম লিংকন বলেছেন, ইতিপূর্বে ত্রাণ ও দূর্যোগ মন্ত্রনালয় থেকে ১ লাখ ১০ হাজার টাকা এবং ৩০ মেট্রিকটন চাল বরাদ্দ পেয়েছিলাম। নতুন করে আরও ৭০ হাজার টাকা এবং ৪২ মেট্রিকট্রন চাল বরাদ্দ পাওয়া গেছে। তিনি ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ কাজে সন্তুষ্টি প্রকাশ করে আরও বলেন, ত্রাণ বিতরণ কার্যক্রম সঠিকভাবে সম্পন্ন করতে উপজেলার ১২৭ জন কর্মকর্তাকে দায়িত্ব দেয়া হয়েছিলো। তারা ইউপি চেয়ারম্যান, মেম্বার ও গ্রাম পুলিশকে সাথে নিয়ে শতভাগ স্বচ্ছতার সাথে বাড়িতে বাড়িতে গিয়ে ত্রাণ সামগ্রী পৌছে দিয়েছেন। এ ছাড়া সন্ধ্যা ৬ টার পর থেকে দোকানপাট বন্ধ রাখতে দিনভর মাইকিং করা হয়েছে।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *