চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে নবজাতকের পর প্রসূতিরও মৃত্যু

স্টাফ রিপোর্টার: নবজাতক তো গেলোই প্রসূতিকেও শেষ পর্যন্ত বাঁচানো গেলো না। গতপরশু কন্যাসন্তান প্রসব করে প্রসূতি সফুরা। অনাবরত রক্তক্ষরণে গতকাল শনিবার ভোরে মৃত্যু হয় তার।

জানা গেছে, গোপালপুরের হযরত আলীর মেয়ে সফুরার সাথে চুয়াডাঙ্গা রাজপুরের সুলতানের সাথে বিয়ে হয়। প্রসব বেদনা দেখা দিলে গতপরশু তাকে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালের প্রসূতি বিভাগে ভর্তি করা হয়। কন্যাসন্তান প্রসব করেন প্রসূতি। কিছুক্ষণ পরই নবজাতকের মৃত্যু হয়। মাত্রারিক্ত রক্তক্ষরণে প্রসূতির অবস্থা ক্রমশ আশঙ্কজনক হয়ে ওঠে। ভোরে মারা যান সফুরা খাতুন।

সফুরার স্বামী সুলতান হোসেন বলেন, আমরা গরিব। অভাবের কারণেই কি আমি আমার স্ত্রী সন্তানকে বাঁচাতে পারলাম না?

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *