চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে দালালদের দৌরাত্ম বৃদ্ধি

পরীক্ষা করিয়ে দেয়ার নামে রোগীর লোকজনের কাছ থেকে টাকা হাতানোর অভিযোগ

স্টাফ রিপোর্টার: চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে দালালদের দৌরাত্ম এতোটাই বৃদ্ধি পেয়েছে যে, এদেরকে যেন থামানোই যাচ্ছে না। দালাল ধরতে সদর হাসপাতালে পুলিশ মোতায়েন করাসহ হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ বিভিন্ন পদক্ষেপ নিলেও এখনো পর্যন্ত তেমন কোনো আশার আলো দেখেনি তারা। এক শ্রেণির চিহ্নিত দালালচক্র পুলিশসহ হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের নাকের ডগার ওপর দিয়ে প্রতিদিন প্রতারণার ফাঁদে ফেলছে রোগীদের। গতকাল সকালে মিজানুর রহমান ওরফে রাঙা মিয়া নামের এক রোগীর লোকজনের কাছ থেকে রক্ত পরীক্ষা করিয়ে দেয়ার কথা বলে অভিনব কায়দায় টাকা হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগ করেন রোগীর সাথে থাকা তার স্ত্রী লাইলী খাতুন।

অভিযোগে জানা যায়, চুয়াডাঙ্গা জেলা সদরের নিলমণিগঞ্জ বাজারের মৃত মুনছুর আলীর ছেলে মিজানুর রহমান ওরফে রাঙা গতকাল শুক্রবার ভোরে ডায়েরিয়ায় আক্রান্ত হলে ওইদিনই সকাল ৬টার দিকে তাকে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালের মেডিসিন ওয়ার্ডে ভর্তি করা হয়। লাইলী খাতুন বলেন, সকাল ১০টার দিকে ডা. পরিতোষ কুমার ঘোষ রাঙাকে দেখেন এবং রক্ত পরীক্ষা করার জন্য বলেন। ডাক্তারের সাথে থাকা দু-তিন জন মিলে রোগীর শরীর থেকে রক্ত নেয়। বলেন ২শ ৮০টাকা লাগবে। অনেক জোরাজোরির পর ২শ ১০ টাকা নেয় তারা লাইলীর কাছ থেকে। পাশের এক রোগীর ইসিজি করানোর পর বলে আপনাদের রিপোর্ট আধাঘণ্টা পর দিচ্ছি। সেই যে গেলো। দিন পার হয়ে রাত গড়িয়ে গেলেও টাকা নেয়া ব্যক্তিরা দেখা করলো না, পরীক্ষার রিপোর্টও দিলো না। দুজন চিকন লম্বা কালো বর্ণের। অন্য একজনের গায়ের রঙ পরিষ্কার একটু মোটা বেটে করে। এ ব্যাপারে হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডা. শামীম কবিরের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, বিষয়টি আমার জানা ছিলো না। আগামীকাল (আজ) ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *