চুয়াডাঙ্গা শান্তিপাড়া মোড়ের অদূরে ধারালো অস্ত্র নিয়ে হামলা : তাঁড়িয়ে ধরে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে জখম যুবক মৃত্যু শয্যায়

স্টাফ রিপোর্টার: চুয়াডাঙ্গা সাদেক আলী মল্লিকপাড়ার যুবক খসরুকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে ক্ষতবিক্ষত করা হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে শান্তিপাড়া স্কুলমোড়ের অদূরে তাড়িয়ে ধরে তাকে তিন যুবক ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে জখম করে।
খসরুকে উদ্ধার করে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। কর্তব্যরত চিকিৎসক ডা. এহসানুল হক মাসুম রোগীর প্রাথমিক চিকিৎসা দেয়ার পাশাপাশি জরুরি ভিত্তিতে রক্ত দেয়ার জন্য বলেন। অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় গতরাতেই তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার পরামর্শ দেন চিকিৎসক।
ঘটনার বর্ণনা দিতে গিয়ে স্থানীয়রা বলেন, সন্ধ্যা ৭টার দিকে কয়েক যুবকের ধাওয়ায় দু যুবক পালানোর চেষ্টা করে। ধাওয়া করে খসরুকে ধরে এলোপাতাড়ি কোপাতে থাকে। সে জীবননগর বাসস্ট্যান্ড সাদেক আলী মল্লিকপাড়ার রমজান আলীর ছেলে। পেশায় পানির ট্যাপ মেরামতের কাজ করে। তার সাথে থাকা রাজু জানান, আমরা দুজন শান্তিপাড়া স্কুল মোড়ের একটি চা দোকান থেকে চা খেয়ে বাড়ির দিকে যাচ্ছিলাম। কিছুদূর যেতেই বেলগাছি মুসলিমপাড়ার আকাশসহ কয়েকজন আমাদের ওপর চড়াও হয়। অবস্থা বেগতিক দেখে দুজনেই দৌড়ে প্রাণে রক্ষার চেষ্টা করি। খসরুকে ওরা ধরে নির্মমভাবে কুপিয়ে জখম করে। খসরুর মাথায়, হাতে মুখে কোপ লেগেছে।
কেনো ধারালো অস্ত্র দিয়ে হামলা? এ প্রশ্নের তাৎক্ষনিক তেমন জবাব মেলেনি। তবে সূত্র বলেছে, শান্তিপাড়ার একটি মাদকচক্রের এক সদস্য পুলিশের হাতে ধরা পড়লে ওই চক্রের দোষর সুমন, আকাশ ক্ষুব্ধ হয়। দুদিন আগে সুমন ওই খসরুকে দোষারোপ করে মারার হুমকিও দেয়। এর পরই সুমনের ঘনিষ্ঠ আকাশসহ কয়েকজন হামলা চালিয়ে গুরুতর জখম করেছে খসরুকে।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *