চুয়াডাঙ্গা শান্তিপাড়া মোড়ে ক্ষুরের পোঁচে জখম চা দোকানি লাল্টু

 

পিতার ওপর হামলা চালিয়ে হাত কেটে দেয়ার বছর খানেকের মাথায় ছেলের ওপর হামলা?

 

স্টাফ রিপোর্টার: চুয়াডাঙ্গা শান্তিপাড়া মোড়ের চা দোকানি লাল্টুকে ক্ষুরের পোচে গুরুতর জখম করা হয়েছে। গতরাত ৯টার দিকে বজুরুকগড়গড়ি বনানীপাড়ার সাগর তাকে ক্ষুর মেরে সটকে পড়ে বলে অভিযোগ। এর ৮ মাস আগে লাল্টুর পিতা আবু জাফর মণ্টুকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে হাত কেটে দেয়া হয়।

জানা গেছে, চুয়াডাঙ্গা জেলা শহরের বুজরুকগড়গড়ি বুদ্ধিমানপাড়ার আবু জাফর মণ্টুর ছেলে লাল্টু শান্তিপাড়া মোড়ের চা দোকানি। অন্যান্য রাতের মতো গতরাতে তিনি নিজ চা দোকানে বসে কাজ করছিলেন। লাল্টু অভিযোগ করে বলেছেন, রাত আনুমানিক ৯টার দিকে বনানীপাড়ার দোলার ছেলে সাগর ছুটে এসে ক্ষুর দিয়ে পোচ মেরে সটকে পড়ে। ক্ষুরের পোঁচে পেটে ঘাড় রক্তাক্ত জখম হয়। তাকে দ্রুত উদ্ধার করে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে নেয়া হয়। ঘাড়ে ও পেটে কমপক্ষে ২০টি সেলাই দিতে হয়েছে।

উল্লেখ্য, গত বছরের ৩১ আগস্ট লাল্টুর পিতা আবু জাফর মন্টুর ওপর হামলা চালানো হয়। তার হাত কেটে দেয় হামলাকারীরা। সেই ঘটনার পর এবার সেই একই দোকানে ছেলে লাল্টুকে ক্ষুরের পোঁচে রক্তাক্ত জখম করা হলো। তবে এ ঘটনার সাথে পূর্ব বিরোধের জের আছে কি-না তা নিশ্চিত করে জানা যায়নি। গতরাতে হামলার শিকার লাল্টু বলেছেন, সাগরের সাথে পূর্ব বিরোধ নেই। হঠাত করেই দোকানে হামলা চালিয়ে ক্ষুর দিয়ে পোঁচ মেরে সরে পড়ে।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *