চুয়াডাঙ্গা-মেহেরপুরে বিদ্যুত পরিস্থিতির দিন দিন ক্রমাবনতি

ভ্যাপসা গরমে অসহনীয় লোডশেডিং ॥ বাড়ছে ক্ষোভ
স্টাফ রিপোর্টার: চুয়াডাঙ্গায় বিদ্যুত সরবরাহ পরিস্থিতি দিন দিন অবনতিই হচ্ছে। গতকালও দিনে ও রাতে সমান তালে দফায় দফায় লোডশেডিং নামক অসহণীয় যন্ত্রণা সহ্য করতে হয়েছে বিদ্যুত গ্রাহক সাধারণকে। ২৪ ঘণ্টায় কোন ফিডারে কতোবার লোডশেডিং? অতোশত জবাব নেই। আছে শুধু সেই পুরোনো উক্তি, যখন যেটুকু পাচ্ছি তখন সেটুকু মেহেরপুর ও চুয়াডাঙ্গার ফিডারগুলোতে সরবরাহ করছি।
গতরাতেও ওজোপাডিকোর চুয়াডাঙ্গা বিতরণ কেন্দ্রে যোগাযোগ করা হলে সুইচ কন্ট্রোলরুমে নিয়োজিত কামরুল হাসান অভিন্ন মন্তব্য করে বলেন, যেখানে বিদ্যুতের চাহিদা কমপক্ষে ২২ মেগাওয়াট, সেখানে পাওয়া যাচ্ছে ১২ মেগাওয়াট। কখনো কখনো তারও কম। জোর করে নিতে গেলে জাতীয় গ্রিড থেকে বিদ্যুত দেয়াই বন্ধ করে দিচ্ছে। আমাদের আর কি করার আছে বলুন? অপরদিকে কেউ কেউ বলেছেন, ভ্যাপসা গরমের মাঝে বৃষ্টিও স্বস্তি দিচ্ছে। তা না হলে বিদ্যুত না পেয়ে ক্ষোভের মাত্রা কোথায় গিয়ে ঠেকতো কে জানে?
চুয়াডাঙ্গায় ভ্যাপসা গরম। বিদ্যুত না থাকলে শহুরে মানুষগুলো ঘেমে নেয়ে একাকার হয়ে ফুঁসছে বারুদের মতো। বিদ্যুতের লোডশেডিঙের সাথে যুক্ত হয়েছে বিদ্যুতের ভোল্টেজ সমস্যা। গ্রাহক সাধারণের অনেকেরই অভিযোগ, লোভোল্টেজের কারণে মাঝে মাঝেই বৈদ্যুতিক যন্ত্রপাতি পুড়ে নষ্ট হচ্ছে। ফ্রিজের কমপ্রেসারও মারখাচ্ছে ব্যাপকহারে। ফলে বিদ্যুতের ভোল্টেজ সমস্যা দ্রুত সমাধানে দায়িত্বশীলদের আন্তরিক হওয়া দরকার। একই সাথে চুয়াডাঙ্গায় নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুত সরবরাহের নিমিত্তে বরাদ্দ বৃদ্ধির বাস্তবমুখি পদক্ষেপ নেয়ারও দাবি জানিয়েছেন দুর্ভোগের শিকার বিদ্যুত গ্রাহক সাধারণ।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *