চুয়াডাঙ্গা মুসলিমপাড়া রেলসিগন্যালের নিকট থেকে যুবককে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করিয়েছে স্থানীয় জনতা

স্টাফ রিপোর্টার: চুয়াডাঙ্গা মুসলিমপাড়া রেলসিগন্যালের নিকট থেকে নির্যাতনের শিকার মশিউর রহমানকে (১৭) উদ্ধার করে সদর হাসপাতালে নিয়েছে স্থানীয় জনতা। মশিউরের মুখে ছিলো টেপ মারা। শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাতের দগদগে দাঁগ। গতরাত সাড়ে ১১টার দিকে উদ্ধার করে তাকে হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করানো হয়।

মশিউর রহমান তার পরিচয় দিতে গিয়ে বলেছে, পিতার নাম নঈম মণ্ডল। বাড়ি ঝিনাইদহ জেলার মহেশপুরের মাথিলায়। সে ঈদের দশ দিন আগে বাড়ি থেকে রাগ করে বের হয়। কখনো বন্ধুর বাড়ি, কখনো পথে পথে। এভাবেই চলছে তার অভিমানি দিন। গতরাত সাড়ে ৯টার দিকে তাকে চুয়াডাঙ্গা স্টেশন থেকে ধরে নিয়ে বেলগাছি মুসলিমপাড়ার নিকট নিয়ে মারধর করে কাছে থাকা মোবাইলফোন ছিনিয়ে নেয় বলে অভিযোগ মশিউরের। এ সময় তাকে খুনের হুমকিও দিয়েছে অজ্ঞাত সন্ত্রাসীরা। তারা একটি চিরকুটও রেখে গেছে। তাতে খুনের হুমকিই রয়েছে।

কেন ধরে নিয়ে নির্যাতন? কেনই বা খুনের হুমকি? এসব প্রশ্নের স্বচ্ছ জবাব না মিললেও মশিউর অবশ্য বলেছে, জীবননগরের সেলিম নামের একজন ফেনসিডিল পাচারের কথা বলে। সেই কথা মোবাইলফোনে রেকর্ড করি। তা প্রকাশ করে দিতে পারি আতঙ্কে আমাকে ধরে মেরে মোবাইলফোনটি ছিনিয়ে নেয়া হয়েছে। চিরকুট দিয়ে খুনের হুমকিও দিয়েছে সেলিমের লোকজন। সেলিমের বিস্তারিত পরিচয় অবশ্য বলতে পারেনি। তবে জীবননগরের খান আবাসিকে তার সাথে মশিউরের পরিচয় হয় বলে সে জানিয়েছে।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *