চুয়াডাঙ্গা বেগমপুরের বীর মুক্তিযোদ্ধা আলমাছ আলীর ইন্তেকাল :রাষ্টীয় মর্যাদায় দাফন :পরিবারের পাশে অহিদুল ও বাবু খান

বেগমপুর প্রতিনিধি: চুয়াডাঙ্গা বেগমপুরের বীর মুক্তিযোদ্ধা বেগমপুর দাখিল মাদরাসার শিক্ষক ও ৭ নং ওয়ার্ড ইউপি সদস্য আলমাছ আলী দু মাস ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে গত শনিবার রাত ১টার দিকে নিজ বাড়িতে মৃত্যুবরণ করেন(ইন্নাল্লিলাহি……………রাজেউন)। রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় তার দাফনকাজ সম্পন্ন করা হয়। শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানাতে মরহুমের বাড়িতে যান চুয়াডাঙ্গা জেলা বিএনপির আহ্বায়ক অহিদুল ইসলাম এবং ১নং যুগ্মআহ্বায়ক বাবুখান।

পারিবারিকসূত্রে জানাগেছে, চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার বেগমপুর ইউনিয়নের চিলমারি পাড়ার সিটু দেওয়ানের ছেলে বীর মুক্তিযোদ্ধা বেগমপুর দাখিল মাদরাসার শিক্ষক বেগমপুর ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ড ইউপি সদস্য আলমাছ আলী হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়েন। প্রথমে তাকে স্থানীয়ভাবে চিকিৎসা দেয়া হয়। শাররীক সুস্থতায় অবনতি দেখা দিলে তাকে নেয়া হয় ঢাকায়। সেখানে পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর আলমাছ আলীর ক্যান্সার ধরা পড়ে। সুস্থতার জন্য ঢাকাতেই চিকিৎসা নিতে থাকেন। কর্তব্যরত চিকিৎসক এক মাসের ওষুধ লিখে বাড়িতে রেখে খাওয়ার পরামর্শ দেন। সে মোতাবেক গত মঙ্গলবার তিনি নিজবাড়িতে ফিরে আসেন। ৪ দিনের মাথায় গত শনিবার রাত ১টার দিকে তার মৃত্যু হয়। আলমাছ আলীর মৃত্যুর খবর ছড়িয়ে পড়লে শেষবারের মতো তাকে দেখার জন্য অসংখ্য গুণগ্রাহী ভিড় জমান। গতকাল বিকেল সাড়ে ৩টায় জানাজা শেষে রাষ্ট্রীয় মর্যদায় আলমাছের দাফন কাজ সম্পন্ন করা হয়। গার্ডঅব অনারের সময় উপস্থিত ছিলেন- নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট রেজা হাসান।গার্ডঅব অনার প্রদান করেন চুয়াডাঙ্গা পুলিশ লাইনের এএসআই ইব্রাহিম, নায়েক শহিদুরের নেতৃত্বে একটি চৌকস দল। পরিবারের প্রতি সবেদনা এবং জানাজায় অংশগ্রহণ করেন চুয়াডাঙ্গা জেলা বিএনপির আহ্বায়ক মুহা.অহিদুল ইসলাম, ১নং যুগ্মআহ্বায়ক মাহমুদ হাসান খান বাবু। উপস্থিত ছিলেন বেগমপুর ইউপি চেয়ারম্যান আলী হোসেন জোয়ার্দ্দার, সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান আহম্মদ আলী, বিএনপি নেতা অ্যাড, শাজাহান মুকুল, আসলাম উদ্দিন, আসাবুল হক, ধন্দু, লিয়াকত আলী শাহ, আজিজুল হক, মুক্তিযোদ্ধা জেলা কমান্ডার আবু হোসেন, ডেপুটি কমান্ডার মোস্তফা খান, মুক্তিযোদ্ধা হাফিজুল ইসলাম, আ.শু বাঙ্গালী, ওসমান আলী, শরিফ উদ্দিন, আনারুল, মুক্তার হোসেন, হরমুজ, নুর ইসলাম, আইয়ুব আলী, মাদরাসার প্রিন্সিপাল আরেফ উল্লা, ইউপি সচিব আসাবুল হক মাসুদ, ইউপি সদস্য আলী কদর, আবুসালে, জিল্লুর রহমান, কায়েস উদ্দিন, এরেং প্রমুখ। আলমাছ আলী ৪ ভাইয়ের মধ্যে ছোট। এইচএসসি পাস করার পর থেকে বাড়ির পাশে বেগমপুর দাখিল মাদরাসায় ১৯৭৭ সালে এবতেদায়ী শাখায় জুনিয়র শিক্ষক হিসেবে শিক্ষকতা জীবন শুরু করেন। গত ইউপি নির্বাচনে ৭নং ওয়ার্ড থেকে ইউপি সদস্য নির্বাচিত হন। চলতি বছর ১০ অক্টোবর তার পেনশনে যাওয়ার দিন ছিলো। মৃত্যুকালে তিনি ৩ ছেলে ও স্ত্রীসহ বহু গুণগ্রাহী রেখে গেছেন।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *