চুয়াডাঙ্গা প্রেসক্লাব ও সাংবাদিক সমিতির নেতৃবৃন্দকে সংবর্ধিত করে লেখক সংঘ ছড়ালো উৎকর্ষের উজ্জ্বলতা

স্টাফ রিপোর্টার: চুয়াডাঙ্গা প্রেসক্লাব ও বাংলাদেশ সাংবাদিক সমিতি চুয়াডাঙ্গা ইউনিটের ২০১৮-২০১৯ মেয়াদে নির্বাচিত কমিটিকে সংবর্ধিত করে অকৃত্রিম ভালোবাসায় সিক্ত করেছে জেলা লেখক সংঘ। গতকাল শুক্রবার চুয়াডাঙ্গা প্রেসক্লাব মিলনায়তনে এ সংবর্ধনার আয়োজন করা হয়। সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের মধ্যমণি চুয়াডাঙ্গার কৃতিসন্তান প্রফেসর ড. মাহবুব হোসেন মেহেদী বক্তব্য দিতে গিয়ে বলেন, যে সাংবাদিকরা সুন্দর সমাজ গঠনে নিজেদের জীবনবাজি রেখে বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ পরিবেশন করেন, সেই সাংবাদিক নেতৃবৃন্দের এ সম্মাননা তথা মূল্যায়ন করে লেখক সংঘ সঠিক সময়ে সঠিক কাজটিই করেছে। এর মধ্যদিয়ে বেরিয়ে এলো লেখক সংঘের উৎকর্ষ। এ উজ্জ্বলতা অবশ্য সুন্দর আগামী গঠনে সহায়ক হবে। বেলা ১০টায় ফুলেল শুভেচ্ছা জানানোর মধ্যদিয়ে অনুষ্ঠানের সূচনা হয়। আয়োজকদের পক্ষ থেকে দুটি সংগঠনের নেতৃবৃন্দকে হাতে ফুলের স্তবক তুলে দেয়া হয়। এরপর চুয়াডাঙ্গা জেলা লেখক সংঘের প্রতিষ্ঠাতা অ্যাড. কাজী গোলাম মোস্তফা হায়দার ও সংগঠনের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক শোয়েব দরবেশের স্ত্রী সদ্য প্রয়াত ফারজানা জেরিন সিমির স্মরণে দোয়া অনুষ্ঠিত হয়। দোয়া শেষে আমন্ত্রিত অতিথি ও সংবর্ধিত নেতৃবৃন্দের বক্তৃতা এবং সবশেষে লেখক সংঘের সদস্যদের অংশগ্রহণে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়। চুয়াডাঙ্গা জেলা লেখক সংঘের সভাপতি ডা. শাহীনূর হায়দারের সভাপতিত্বে সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন দেশবরেণ্য অর্থোপেডিক সার্জন ডা. মাহবুব হোসেন মেহেদী। প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি বলেন, সরকারি ও বিরোধী দলের পরই সাংবাদিকদের অবস্থান। অর্থাৎ দেশের তৃতীয় শক্তি। সাংবাদিকদেরকে সম্মানিত করে চুয়াডাঙ্গা জেলা লেখক সংঘ যথার্থ কাজটিই করেছেন। শুধু এই কাজটির মধ্যেই নয়, অতীতেও অনন্য উদাহরণ সৃষ্টি করেছে, এখনও করছে। ভবিষ্যতে ভালো কাজের জন্য আমরা লেখক সংঘের সাথে আছি থাকবো। তিনি বর্তমান সরকারের প্রধানমন্ত্রীর অগ্রযাত্রা তরান্বিত করার কথা উল্লেখ করে বলেন, এই মার্চ মাস অতীব গুরুত্বপূর্ণ একটি মাস। যে মাসে হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালী জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মহান স্বাধীনতার ডাক দিয়েছিলেন। এই মাসেই আমরা মহান মুক্তিযুদ্ধে ঝাপিয়ে পড়েছিলাম। আজ আমরা স্বাধীন। আজ আমরা বঙ্গবন্ধুর যোগ্য কন্যার নেতৃত্বে বিশ্ব দরবারে গর্বিত এক জাতি।
জেলা লেখক সংঘের সাধারণ সম্পাদক কবি ময়নুল হাসানের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে প্রধান আলোচক হিসেবে বক্তব্য রাখেন, লেখক সংঘের প্রধান উপদেষ্টা জীবননগর উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান গোলাম মোর্তুজা। বিশিষ্ট সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব গোলাম মোর্তুজা তার বক্তব্যে বলেন, কলমযোদ্ধা সাংবাদিকরা দেশ বিদেশের খবর সংগ্রহ করে পৌঁছে দেন আমাদের কাছে। বৃহত্তর কর্মক্ষেত্রে যদি আজকের সংবর্ধিত অতিথিরা থাকতেন তাহলে তাদের প্রতিভা আরও বিকশিত করার সুযোগ পেতেন। প্রতিভাবান সাংবাদিকদের জেলা লেখক সংঘ সংবর্ধনা দিয়ে সঠিক কাজটিই করেছে। জেলা লেখক সংঘের সকল সদস্যের মানসিকতা সুন্দর। তাই সুন্দর মানুষকে, আলোকিত মানুষকে তারা সম্মানিত করে যাচ্ছে ধারাবাহিকভাবে।
বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন হারদী এমএস জোহা কলেজের অধ্যক্ষ ওমর ফারুক, সরোজগঞ্জ ছাদেমান নেছা বালিকা বিদ্যালয় ও তেতুল শেখ কলেজের প্রতিষ্ঠাতা আলোর মানুষ মো. আব্দুল্লাহ শেখ, লেখক সংঘের সহ-সভাপতি ওমর আলী মাস্টার, সুরেশ কুমার আগরওয়ালা ও আকলিমা খাতুন। সাংবাদিক নেতৃবৃন্দের মধ্যে চুয়াডাঙ্গা প্রেসক্লাবের সভাপতি দৈনিক মাথাভাঙ্গার সম্পাদক-প্রকাশক, বাংলাভিশনের চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধি সরদার আল আমিন ও বাংলাদেশ সাংবাদিক সমিতি চুয়াডাঙ্গা ইউনিটের সভাপতি এনটিভি, দৈনিক ভোরের ডাক ও রেডিও আমার’র প্রতিনিধি অ্যাড. রফিকুল ইসলাম।
সংবর্ধিত অতিথি চুয়াডাঙ্গা প্রেসক্লাব নির্বাহী কমিটির সভাপতি সরদার আল আমিন তার বক্তব্যে বলেন, এই সংবর্ধনার মাধ্যমে আরও দায়িত্বশীল আরও সুন্দর হওয়ার দায়িত্ব দেয়া হলো। তিনি সাংবাদিক ভাইদের আরও কার্যকরী ভূমিকা পালনের আহ্বান জানান। বাংলাদেশ সংবাদিক সমিতি চুয়াডাঙ্গা ইউনিটের নির্বাহী কমিটির সভাপতি রফিকুল ইসলাম তার বক্তৃতায় বলেন, চুয়াডাঙ্গা লেখক সংঘের সকল ভালোকাজে আমরা পাশে থাকবো। বিশেষ অতিথি আলোর মানুষ হাজি মো. আব্দুল্লা বলেন এই সংবর্ধনা অনুষ্ঠান আয়োজনের মাধ্যমে জেলা লেখক সংঘ আরও একটি মহৎ কাজ করলো। এক সময়ের এই রক্তাক্ত জনপদে শান্তি প্রতিষ্ঠার জন্য সাংবাদিক ভাইদের কার্যকরী ভূমিকা ছিলো অপরিসীম। তাদের ক্ষুরধার লেখা এবং প্রতিবেদন প্রকাশের মধ্য দিয়ে এই জনপদে শান্তি এসেছে।
সাংস্কৃতিক পর্বে অংশ নেন গোলাম মোর্তুজা, শাহীনূর হায়দার, আহাদ আলী মোল্লা, শাহ আলম সনি, অহবা হাবিব, দিলরুবা খানম খুকু, ফাতেমা ইসলাম নাইস, আশিক নেওয়াজ, নিশাত শারমিন সোনিয়া ও রঘুনাথ পাল এবং কবিতা আবৃত্তি করেন আফসানা কণা, জাকিয়া সুলতানা ঝুমুর, হেলাল হোসেন জোয়ার্দ্দার, শামিমা আক্তার, আজিজ হোসেন ও চিত্তরঞ্জন সাহা চিতু।
গত ৩০ ডিসেম্বর চুয়াডাঙ্গা প্রেসক্লাব ও বাংলাদেশ সাংবাদিক সমিতি চুয়াডাঙ্গা ইউনিটের ২০১৮-২০১৯ মেয়াদে দ্বি-বার্ষিক নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। সভাপতি সরদার আল আমিন ও সাধারণ সম্পাদক রাজীব হাসান কচির নেতৃত্বাধীন চুয়াডাঙ্গা প্রেসক্লাব এবং রফিকুল ইসলাম ও শাহ আলম সনির নেতৃত্বাধীন বাংলাদেশ সাংবাদিক সমিতি চুয়াডাঙ্গা ইউনিটের নেতৃবৃন্দকে গতকাল শুক্রবার সংবর্ধিত করা হয়।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *