চুয়াডাঙ্গা-ঝিনাইদহসহ সারাদেশে সাংবাদিক সাগর-রুনি হত্যার বিচারের দাবিতে মানববন্ধন

আগামী ৩১ মার্চ সাংবাদিকদের অনশন কর্মসূচি

স্টাফ রিপোর্টার: সাগর-রুনি হত্যাকাণ্ডের বিচার দাবিতে আগামী ৩১ মার্চ অনশন কর্মসূচি পালনের ঘোষণা দিয়েছেন সাংবাদিক নেতারা। গতকাল মঙ্গলবার সকালে ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি মিলনায়তনে এ কর্মসূচি ঘোষণা করেন ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির সভাপতি শাহেদ চৌধুরী। দ্বিতীয় মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে ডিআরইউ আয়োজিত স্মরণসভায় সাগর-রুনির পরিবারের সদস্যরাও উপস্থিত ছিলেন।

এদিকে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়ন দু অংশ যৌথভাবে প্রতিবাদসভার আয়োজন করে। সাংবাদিক নেতা মঞ্জুরুল আহসান বুলবুল বলেন, রাষ্ট্রের নাগরিক হিসেবে সাগর-রুনি হত্যাকাণ্ডের বিচার করতে সরকার ব্যর্থ হয়েছে। কারণ যেকোনো নাগরিকের জীবনের নিরাপত্তা দেয়া সরকারের দায়িত্ব। তিনি বলেন, সাগর-রুনির বিচার না পেয়ে সাংবাদিক সমাজ ক্ষুব্ধ, মর্মাহত।

সাংবাদিক নেতা শওকত মাহমুদ বলেন, সাগর-রুনি হত্যাকাণ্ডের মধ্যদিয়ে দেশের সাংবাদিক সমাজের মধ্যে একটি ভয় ঢুকিয়ে দেয়া হয়েছিলো। সংবাদমাধ্যমের কণ্ঠরোধের অংশ হিসেবে এ হত্যাকাণ্ড ঘটানো হয়। ঘটনার দু বছরেও কোনো রহস্য উদঘাটন করতে না পারাটা দুঃখজনক। তিনি বলেন, দেশের গণমাধ্যম এখন কঠিন সময় পার করছে। সাংবাদিক সমাজ ঐক্যবদ্ধ না হলে গণমাধ্যমের স্বাধীনতা ও সাংবাদিকদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করা যাবে না। সমাবেশে সাংবাদিক নেতারা বক্তব্য রাখেন।

সাংবাদিক দম্পতি মাছরাঙা টেলিভিশনের বার্তা সম্পাদক সাগর সরওয়ার এবং তার স্ত্রী মেহেরুন রুনির নৃশংস হত্যাকাণ্ডের আজ দু বছর পূর্তি। এ দু সংবাদকর্মীর হত্যা রহস্য উন্মোচন ও প্রকৃত খুনিদের গ্রেফতারপূর্বক বিচারের দাবিতে গতকাল মঙ্গলবার বেলা সাড়ে ১১টায় চুয়াডাঙ্গা প্রেসক্লাবের সামনে চুয়াডাঙ্গা প্রেসক্লাব, সাংবাদিক সমিতির আয়োজনে মানববন্ধন কর্মসূচির পালিত হয়।

বেলা সাড়ে ১১টা থেকে শুরু হয়ে বেলা ১২টায় শেষ হওয়া মানববন্ধন চলাকালে সাংবাদিক নেতৃবৃন্দ তাদের বক্তৃতায় বলেন, নানান টালবাহানায় চাঞ্চল্যকর এ খুনের প্রকৃত রহস্য আদৌ বের হবে কি-না তা নিয়ে আমরা এখন যথেষ্ট সন্দীহান। ডিএনএ টেস্টের নামে সময় নষ্ট হয়েছে অনেক। হত্যাকারীরা এর মধ্যেই সম্ভবত নিজেদের মুখোশ বদলেও ফেলেছে। সরকারের আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর প্রতি তারা হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে বলেন, কারও ইশারায় সাগর-রুনি হত্যার মনগড়া বা সাজানো তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করলে গোটা দেশের সাংবাদিক সমাজ বৃহত্তর আন্দোলনের ডাক দিতে বাধ্য হবে। সমাবেশে বক্তব্য রাখেন- প্রবীণ সাংবাদিক মাহতাবউদ্দিন, আজাদ মালিতা, সাংবাদিক শাহ আলম সনি, জাহিদুল ইসলাম, মরিয়ম শেলী, শাহার আলী এবং কেবল অপারেটর অ্যাসোসিয়েশন (কোয়াব) জেলা সভাপতি কেন্দ্রীয় নেতা সালাউদ্দিন মিঠু।

মানববন্ধনে চুয়াডাঙ্গা প্রেসক্লাব, সাংবাদিক সমিতির সকল সদস্য, বিভিন্ন পেশাজীবী ও সামাজিক, সাংস্কৃতিক সংগঠন, কেবল অপারেটর অ্যাসোসিয়েশন (কোয়াব) নেতৃবৃন্দসহ সর্বস্তরের মানুষ অংশগ্রহণ করেন।

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি জানিয়েছেন, সাগর-রুনি হত্যাকারীদের শনাক্ত করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে মানববন্ধন করেছেন ঝিনাইদহে কর্মরত সাংবাদিকরা। গতকাল মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১১টার দিকে ঝিনাইদহ প্রেসক্লাবের সামনে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। মাছরাঙা টেলিভিশন আয়োজিত এ কর্মসূচিতে জেলা প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক মিডিয়ার সাংবাদিক, সামাজিক ও সাংস্কৃতিক সংগঠনের কর্মীরা অংশ নেন। এ সময় এক মিনিট নীরবতা ও সাগর-রুনির আত্মার মাগফেরাত কামনা করা হয়।

মানববন্ধন চলাকালে ঝিনাইদহ বক্তব্য রাখেন- মাছরাঙা টেলিভিশনের ঝিনাইদহ প্রতিনিধি শাহরিয়ার রহমান রকি প্রেসক্লাবের সভাপতি সাংবাদিক এম সাইফুল মাবুদ, সাধারণ সম্পাদক নিজাম জোয়ারদার, আমিনুর রহমান টুকু, শাহনেওয়াজ খান সুমন, আহমেদ নাসিম আনসারী ও শেখ রুহুল আমিন। মানববন্ধনে বক্তারা হতাশা প্রকাশ করে বলেন, মাছরাঙা টেলিভিশনের প্রধান বার্তা সম্পাদক সাগর সরোয়ার ও এটিএন বাংলার সিনিয়র রিপোর্টার মেহেরুন রুনি হত্যাকাণ্ডের পর দু বছর ধরে প্রশাসন ও সরকারের পক্ষে নানা আশার কথা শোনা গেছে। কিন্তু আজও বিষয়টি অন্ধকারে রয়েছে; এটি পুরো জাতির জন্য দুঃখজনক। অনতিবিলম্বে তারা সরকার ও তথ্য মন্ত্রণালয়ের কাছে এ হত্যাকাণ্ডের বিচারের দাবি জানান। অন্যথায় সারাদেশের সাংবাদিকদের নিয়ে কঠোর আন্দোলনের হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেন বক্তারা।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *