চুয়াডাঙ্গা খাদেমুল মাদরাসার অনিয়মের অভিযোগ : বৈঠকে ডেকে নিয়ে কৈয়ফত চাওয়ার নামে এক অভিভাবককে মারধর

 

স্টাফ রিপোর্টার: মাদরাসার নানা অনিয়ম ও দুর্নীতির প্রতিবাদ করায় এক অভিভাবককে মেরে হাত ভেঙে দেয়া হয়েছে। কাপালেও রক্তাক্ত জখম হয়েছেন তিনি। কমিটির নেতৃবৃন্দের ইন্ধনে বহিরাগতরা তাকে গতকাল শুক্রবার সন্ধ্যায় বেধড়ক মারপিট করে বলে অভিযোগ।

আহত অভিভাবক চুয়াডাঙ্গা কলোনির শহিদুল হোসেন এ ব্যাপারে মাথাভাঙ্গা দপ্তরে উপস্থিত হয়ে লিখিত অভিযোগ করেছেন। অভিযোগসূত্রে জানা গেছে, চুয়াডাঙ্গা ফার্মপাড়ার খাদেমুল ইসলাম কওমি মাদরাসার বিভিন্ন অনিয়ম ও দুর্নীতির প্রতিবাদ করেন শহিদুল হোসেন। এ ব্যাপারে মাদরাসা পরিচালনা কমিটির সভাপতি বরাবর তিনি অভিযোগ করেন। গতকাল সন্ধ্যায় এ ব্যাপারে মিটিং হওয়ার কথা ছিলো। সেখানে শহিদুল হোসেন উপস্থিত হলে অভিযুক্তদের কয়েকজন লোকজন দিয়ে শহিদুলকে বেপরোয়া মারধর করেন। এতে তার বাঁ হাত ভেঙে যায়। পক্ষান্তরে মাদরাসার বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালানোর কারনেই তাকে মাদরাসার বৈঠকে ডাকা হয়। উত্তেজিত মসুল্লিরা তাকে মারধর করেছে। মাদরাসায় এ ঘটনাকে স্থানীয় সচেতনমহল তীব্র সমালোচনা করেছে। অবশ্য মাদরাসা পরিচালনা কমিটির এক নেতা বলেছেন, শহিদুলের এক ছেলে মাদরসায় পড়তো। সে ভালো ছাত্র ছিলো না। তার ছেলে খাবার পায়নি বলে অভিযোগ তুলে ছেলেকে সরিয়ে নিয়ে যায়। এরপর অপ্রচার চালানোর কারণেই বৈঠকে ডেকে কৈফিয়ত চাওয়া হয়। সন্তুষ্টুজনক জবাব না পেলে পিটুনির শিকার হয় শহিদুল।

Leave a comment

Your email address will not be published.