চুয়াডাঙ্গা আলুকদিয়ার মনিরামপুরে ডাকাতি : মারধরে মা-মেয়ে আহত

 

স্টাফ রিপোর্টার: চুয়াডাঙ্গা আলুকদিয়ার মনিরামপুরে ডাকাতি হয়েছে। গতরাত সাড়ে ১০টার দিকে কাঠব্যবসায়ী শহিদুলের বাড়িতে একদল ডাকাত হানা দিয়ে সোনার গয়নাগাটি ও নগদ ৪০ হাজার টাকা ডাকাতি করেছে। ডাকাতির সময় বাধা দেয়ায় মারপিটে বৃদ্ধা রাবিয়া খাতুন ও তার মেয়ে ফিরোজা খাতুন আহত হয়েছেন। এদেরকে উদ্ধার করে গতরাতেই চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে নেয়া হয়।

ঘটনার বর্ণনা দিতে গিয়ে শহিদুল ইসলামের স্ত্রী ফিরোজা খাতুন (৪০) বলেন, স্বামী কাঠব্যবসায়ী। তিনি ব্যবসার কারণে গতপরশু ঢাকায় গেছেন। ছেলে আসিফ ইকবাল প্রান্ত গতরাতে প্রাইভেট পড়তে যায়। প্রান্ত বাড়ি না ফেরায় বাড়ির মেনগেট খোলা ছিলো। এ সুযোগে ৬/৭ জনের একদল ডাকাত বাড়িতে ঢুকে অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে। আনুমানিক ৭ ভরি সোনার গয়না, নগদ ৪০ হাজার টাকা ডাকাতি করে। ডাকাতিতে বাধা দিলে তারা আমাকে ও আমার কাছে থাকা আমার মা রাবিয়া খাতুনকে (৭০) মারধর করে।

ডাকাতির পর ডাকাতদল পালায়। ফিরোজা খাতুন চিৎকার শুরু করে। প্রতিবেশীরা ছুটে আসেন। খবর দেন ফায়ার স্টেশনে। ফায়ার সার্ভিস অ্যান্ড সিভিল ডিফেন্স সদস্যরা লাল গাড়ি নিয়ে দ্রুত হাজির হন আলুকদিয়ার মনিরামপুরে। আহত মা-মেয়েকে উদ্ধার করে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে নেয়া হয়। এ সময় ফিরোজা খাতুন বলেন, ডাকাতদলের মধ্যে তিনজনকে চিনেছি। ওরা তিনজন আলমডাঙ্গার পল্লি মোচাইনগরের শাহীন, মিনাজ ও নাসির। এদেরকে আমার দেবরের সাথে বেড়ানোর সুবাদে আগে থেকেই চিনতাম।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *