চুয়াডাঙ্গা আলমডাঙ্গা মেহেরপুর ও ঝিনাইদহে আওয়ামী লীগ ছাত্রলীগ ও গণজাগরণ মঞ্চের মিছিল

জামায়াত শিবিরের হরতাল প্রত্যাখানসহ দেশ বিরোধী ষড়যন্ত্র প্রতিহতের আহ্বান

 

 

মাথাভাঙ্গা ডেস্ক: চুয়াডাঙ্গা মেহেরপুর ও ঝিনাইদহে জামায়াতে ইসলামীর হরতালের বিপক্ষে মিছিল সমাবেশ করেছে আওয়ামী লীগ, ছাত্রলীগ ও গণজাগরণ মঞ্চ। তারা জামায়াতের হরতাল প্রত্যাখান করে মিছিল সমাবেশ করে। মিছিলকারীরা স্বাধীনতা বিরোধীদের দেশ বিরোধী ষড়যন্ত্র প্রতিহতেরও আহ্বান জানান।

বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় কর্মসূচি অনুযায়ী চুয়াডাঙ্গা জেলা ছাত্রলীগ জামায়াত-শিবিরের হরতালের প্রতিবাদে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেন। জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মো. শরিফ হোসেন দুদুর নেতৃত্বে চুয়াডাঙ্গা সরকারি কলেজ চত্বর থেকে হরতালবিরোধী মিছিলটি শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে চৌরাস্তা মোড়ে বিক্ষোভ সমাবেশ করে। সমাবেশে বক্তব্য রাখেন- জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মো. শরীফ হোসেন দুদু, সহসভাপতি ইকবাল শরীফ উদ্দীন, পৌর ছাত্রলীগ সভাপতি জাবিদুল ইসলাম জাবিদ, সাধারণ সম্পাদক নাঈম পারভেজ সজল, সদর থানা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মো. সুমন রেজা, কলেজ ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি বিপ্লব, সাধারণ সম্পাদক হাফিজুর রহমান কালু, কলেজ ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মো. জানিফ। উপস্থিত ছিলেন- পৌর ছাত্রলীগের সহসভাপতি হাসান, জাহাঙ্গীর, মাফি, শেখ সামী, তাপু, রুবেল, সুইট, তাওরাত, রাকিব, মন্টা, হাসিবুল, রানা, কলেজ ছাত্রলীগের জ্যাকি, জনি, বিপ্লব, এজাজ, রয়েল, শামীম, ফজলু, থানা ছাত্রলীগের আলামিন, রিপন, হালিম, সামাদ, ইমরান, জেলা ছাত্রলীগের শিহাব, আনোয়ার, রাশেদ, রাজা, শান্তি, সজল, মধু প্রমুখ। সমাবেশে বক্তারা তাদের বক্তব্যে অবিলম্বে জামায়াত-শিবিরের রাজনীতি নিষিদ্ধ ও যাদের ফাঁসির আদেশ হয়েছে অবিলম্বে তাদের রায় কার্যকর করার দাবি জানান। সেই সাথে জেলা ছাত্রলীগের সকল ইউনিটকে এক হয়ে আগামী নির্বাচনে শেখ হাসিনাকে আবারও প্রধানমন্ত্রী করার জন্য কাজ করার নির্দেশ দেন। সমাবেশটি পরিচালনা করেন জেলা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ ফরিদ আহমেদ।

আলমডাঙ্গা ব্যরো জানিয়েছে, আলমডাঙ্গা উপজেলা, পৌর ও কলেজ ছাত্রলীগের উদ্যোগে জামায়াতের ডাকা হরতালের বিরুদ্ধে গতকাল মিছিল ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। সকাল ১০টার দিকে আলমডাঙ্গা ডিগ্রি কলেজ থেকে জামায়াতের ডাকা হরতালের বিরুদ্ধে একটি মিছিল ডিগ্রি কলেজ থেকে বের হয়ে শহর প্রদক্ষিণ করে। পরে কলেজ চত্বরে একটি সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন ডিগ্রি কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি আশরাফুল হক। প্রধান অতিথি ছিলেন উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি সালমুন আহমেদ ডন। বিশেষ অতিথি ছিলেন উপজেলা ছাত্রলীগের সম্পাদক আলাল আহমেদ, পৌর ছাত্রলীগের সভাপতি নয়ন সরকার, পৌর ছাত্রলীগের সম্পাদক তমাল। কলেজ ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক পিন্টুর উপস্থাপনায় বক্তব্য রাখেন- উপজেলা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জাইদুল, সাবেক ছাত্রলীগ নেতা শাহীন রেজা, পৌর ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক কাজী চন্দন, আসান্নুর, সোহাগ, রনি, হাসান প্রমুখ।

গাংনী প্রতিনিধি জানিয়েছেন, জামায়াতের ডাকা হরতালের প্রতিবাদে মেহেরপুর গাংনী ডিগ্রি কলেজ ক্যাম্পাসে হরতালবিরোধী বিক্ষোভ মিছিল করে ছাত্রলীগ। গতকাল বুধবার সকালে উপজেলা ছাত্রলীগের উদ্যোগে অনুষ্ঠিত বিক্ষোভ মিছিলে উপস্থিত ছিলেন- উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি হাসান রাজা সেন্টু, সাধারণ সম্পাদক বিপ্লব হোসেন, সাবেক যুগ্ম আহ্বায়ক আব্দুল আলীম, সহসভাপতি হুমায়ন কবির রিপন, সাংগঠনিক সম্পাদক সাগর, পৌর ছাত্রলীগ সভাপতি মানিক আহম্মেদ, সম্পাদক ইমরান হাবিব, কলেজ ছাত্রলীগ সভাপতি রতন ও রাইপুর ইউপি ছাত্রলীগ সভাপতি নুর ইসলামসহ নেতৃবৃন্দ।

মেহেরপুর অফিস জানিয়েছে, জামায়াতে ইসলামী বাংলাদেশের কেন্দ্রীয় সেক্রেটারি জেনারেল আব্দুল কাদের মোল্লার ফাঁসির রায়ে সন্তোষ প্রকাশ করে মেহেরপুরে আনন্দ মিছিল ও সমাবেশ করেছে মেহেরপুর সদর থানা আওয়ামী লীগ। গতকাল বুধবার বিকেল পাঁচটার দিকে মেহেরপুর শহরের হোটেলবাজার তিন রাস্তার মোড় থেকে একটি আনন্দ মিছিল বের হয়ে শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে। মিছিলে নেতৃত্ব দেন মেহেরপুর সদর থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. গোলাম রসুল। মিছিল শেষে মেহেরপুর হোটেলবাজার তিন রাস্তার মোড়ে অনুষ্ঠিত সমাবেশে প্রধান অতিথি ছিলেন- মেহেরপুর জেলা পরিষদের প্রশাসক জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. মিয়াজান আলী। সদর থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি মো. গোলাম রসুলের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি মো. আসকার আলী, আব্দুল হালিম, শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক আব্দুল মান্নান, সদর থানা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রব বিশ্বাস, জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি সাফুয়ান আহমেদ রুপক, সম্পাদক বারিকুল ইসলাম লিজন, কলেজ ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি মফিজুর রহমান, শহর ছাত্রলীগের সভাপতি মাহফিজুর রহমান পোলেন, সদর থানা ছাত্রলীগের সভাপতি রাকিবুল ইসলাম, কলেজ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক কুদরত-ই খোদা রুবেল প্রমুখ।

ঝিনাইদহ প্রতিনিধি জানিয়েছেন, জামায়াতের ডাকা লাগাতার হরতালের প্রতিবাদ ও কাদের মোল্লার ফাঁসির রায় কার্যকর করার দাবিতে ঝিনাইদহে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছেন জেলা আওয়ামী লীগ ও অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীরা। গতকাল বুধবার সকাল ১১টার দিকে শহরের পায়রা চত্বর থেকে মিছিলটি বের হয়ে প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে। মিছিলে নেতাকর্মীরা হরতাল বিরোধী বিভিন্ন স্লোগান দেন। মিছিলে নেতৃত্ব দেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. আজিজুর রহমান। মিছিল শেষে শহরের পোস্টঅফিস মোড়ে সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। সমাবেশে বক্তব্য রাখেন- আওয়ামী লীগ নেতা অ্যাড. আজিজুর রহমান, আব্দুল খালেক, তৈয়ব আলী জোয়ার্দ্দার, আক্কাচ আলী, জেডএম রশিদুল ইসলাম, আসাদুজ্জামান আসাদ, আশরাফুল ইসলাম, নজরুল ইসলাম, হাফিজুর রহমান, খাইরুল ইসলাম প্রমুখ।

কাদের মোল্লাসহ সকল যুদ্ধাপরাধীদের ফাঁসির রায় কার্যকর দাবিতে ঝিনাইদহে মিছিল ও সমাবেশ করেছে গণজাগরণ মঞ্চ। গতকাল বুধবার সকাল সাড়ে ১১টায় সরকারি কেশবচন্দ্র মহাবিদ্যালয় থেকে মিছিলটি বের হয়ে শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে। পরে শহরের পায়রা চত্বরে সমাবেশ করে মিছিলকারীরা। সমাবেশে বক্তব্য রাখেন- গণজাগরণ মঞ্চের সমন্বয়ক অমিয় মজুমদার অপু, অমিত শাহরিয়ার, জেএম অনিম আহমেদ সোহান, ড্যানি আহমেদ, দেবাশীষ অধিকারী মানিক, বিদ্যুত আহমেদ ও রুবেল খান। বক্তারা অবিলম্বে কাদের মোল্লাসহ সকল যুদ্ধাপরাধীদের ফাঁসির রায় কার্যকর করার দাবি জানান। বক্তারা আরও বলেন, জামায়াত যতোই হরতাল ডাকুক না কেন জনগণ তা প্রত্যাখান করবে। সেই সাথে জামায়াত-শিবিরের ধ্বংসাত্মক রাজনীতি নিষিদ্ধ ঘোষণা না করা পর্যন্ত গণজাগরণ মঞ্চ তাদের আন্দোলন চালিয়ে যাবে বলে ঘোষণা দেয়া হয়।

Leave a comment

Your email address will not be published.