চুয়াডাঙ্গা আলমডাঙ্গার পাঁচকমলাপুর হাফেজিয়া কাওমিয়া মাদরাসায় বার্ষিক মাহফিল

 

সহযোগিতার আহ্বানে ধর্মপ্রাণ নারীপুরুষের সাড়া

স্টাফ রিপোর্টার: আলমডাঙ্গার পাঁচকমলাপুর হাফেজিয়া কাওমিয়া মাদরাসা প্রাঙ্গণে ১০তম বার্ষিক তাফসিরুল কুরআন মাহফিলে উপচেপড়া মসুল্লি শরিক হয়েছেন। ধর্মপ্রাণ অসংখ্য নারীও শরিক হন। গতকাল বুধবার সন্ধ্যার পর থেকে শুরু হয়ে মধ্যরাত পর্যন্ত চলে ওয়াজ।

সভাপতির বক্তব্য দিতে গিয়ে মারসাটির প্রতিষ্ঠাতা মরহুম হাজি শামসুজ্জোহার দ্বিতীয় পুত্র হাজি সাহেদুজ্জামান টরিক কুরআন ও হাদিসের আলোকে জীবন সংগ্রামের বর্ণনা তুলে ধরেন। তিনি স্মৃতিচারণ করতে গিয়ে আবেগ আপ্লুতও হয়ে পড়েন। তিনি সকল সন্তানকে তাদের পিতা-মাতার প্রতি কর্তব্য পরায়ণ হওয়ার অনুরোধ জানান। একই সাথে তার পিতার প্রতিষ্ঠা করা মাদরাসার কার্যক্রম আরো গতিশীল করতে সকলের সহযোগিতা কামনা করেন। এ আহ্বানে সাড়া দিয়ে সাথে সাথে উপস্থিত ধর্মপ্রাণ নারী-পুরুষ সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেন। সাথে সাথে নগদ অর্থ দিয়ে অসংখ্য মানুষ সহযোগিতা করেন। সহযোগিতার ধারা অব্যাহত রাখারও ইচ্ছে ব্যক্ত করেন অনেকে।

১০তম বার্ষিক তাফসিরুল কোরআন মাহফিলে মাদরাসার ৪জন হাফেজকে পাগড়ি পরিয়ে দেয়ার পাশাপাশি তাদেরকে যারা হাফেজ হতে সহযোগিতার হাত বাড়িয়েছেন, বাড়িতে রেখে খাওয়া-দাওয়ার ব্যবস্থা করেছেন তাদেরকেও বিশেষ সম্মানে ভূষিত করা হয়।

তাফসির মাহফিলে প্রধান বক্তা ছিলেন ভারতের চব্বিশ পরগনার আলহাজ মাও. আবুল কালাম। বিশেষ অতিথি ছিলেন হযরত মাওলানা মুফতি জুনাইদ আল হাবিবীসহ স্থানীয় ওলমায়ে কেরমাগণ। বক্তারা কোরআন হাদিসের আলোকে জীবযাপন ও মহান সৃষ্টিকর্তার কৃপা লাভের লক্ষ্যে কাজ করার আহ্বান জানান। তাফসির শেষে বিশেষ মোনাজাতে মহান সৃষ্টিকর্তার দরবারে হাত তুলে শান্তি সমৃদ্ধি কামনা করে এলাকার উন্নয়ন কামনা করা হয়।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *