চুয়াডাঙ্গায় ডিসি ও ইউএনও কার্যালয়েগণশুনানি চলছে

 

স্টাফ রিপোর্টার: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে চুয়াডাঙ্গা জেলা প্রশাসক ও ইউএনও কার্যালয় সমূহে সাপ্তাহিক গণশুনানির কার্যক্রম শুরু হয়েছে। সেবা প্রত্যাশী জনগণের অভাব অভিযোগ সরাসরি শোনার মাধ্যমে সেগুলোর নিষ্পত্তি এবং নাগরিক সেবা প্রদানের মান ও গতি বৃদ্ধির লক্ষ্যে এ উদ্যোগ নেয়া হয়েছে।

চলতি বছরের জুন থেকে এ কার্যক্রম শুরু হয়েছে। সেই হিসেবে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে প্রতি বুধবার, চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ে প্রতি মঙ্গলবার, আলমডাঙ্গা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ে বৃহস্পতিবার, দামুড়হুদা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ে বৃহস্পতিবার ও জীবননগর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ে মঙ্গলবার এ শুনানিগ্রহণ ও নিষ্পত্তি চলছে। জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে জেলা প্রশাসক নিজে এবং উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ে ইউএনও’রা এসব শুনানিগ্রহণ ও নিষ্পত্তি করছেন।

জেলা প্রশাসকের কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, গতকাল মঙ্গলবার পর্যন্ত ২৭টি শুনানি নিষ্পত্তি করেছেন। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাদের কার্যালয়েও এভাবে শুনানি অনুষ্ঠিত হয়েছে।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, সপ্তার ওই নির্দিষ্ট দিনে অফিস চলাকালে সেবাপ্রত্যাশী নাগরিকদের অভাব অভিযোগ শুনানি গ্রহণ এবং ওইদিন ছুটি থাকলে পরবর্তী কার্যদিবসে না গ্রহণ করা,সেবাপ্রদানের সাথে জড়িত কর্মকর্তাদের শুনানিতে উপস্থিত রাখা, লিখিত বা মৌখিক উভয় ধরনের অভিযোগ গ্রহণ করাসহ বেশকিছু গুরুত্বপূর্ণ বিষয় উল্লেখ করা হয়েছে।

জানতে চাইলেআলমডাঙ্গা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোহাম্মদ আশরাফুল আলম জানান, বেশ কিছু সমস্যা ইতোমধ্যে সমাধান করা হয়েছে। তবেএজন্য সেবা প্রত্যাশীরা লিখিত আবেদন করলে সংশ্লিষ্ট দফতরের কর্মকর্তাদের উপস্থিতিতে তা নিষ্পত্তি করা সহজ হয়। দামুড়হুদা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. ফরিদুর রহমান জানান, এ পর্যন্ত তিনি মাত্র একটি অভিযোগ পেয়েছেন এবং নিষ্পত্তি করেছেন। চুয়াডাঙ্গা ও জীবননগরে এ পর্যন্ত কোনো আবেদন জমা পড়েনি।

জেলা প্রশাসক মো. দেলোয়ার হোসাইন ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, প্রতি বুধবার গণশুনানি অনুষ্ঠিত হয়। তাইএদিন কোনো দাপ্তরিক কাজ রাখা হয়না এবং সভা সমাবেশে অংগ্রহণও করা হয়না।

Leave a comment

Your email address will not be published.