চুয়াডাঙ্গায় চালের দোকানে দিনে দুপুরে ম্যানেজারকে বোকা বানিয়ে ৫০ হাজার টাকা চুরি : সিসি ক্যামেরায় চোর শনাক্ত

স্টাফ রিপোর্টার: তখন দুপুর সাড়ে ১২টা। কয়েকজন নারী ক্রেতা বের হতে না হতেই চুয়াডাঙ্গা ফেরিঘাট রোডের সুগন্ধা নামের চালের দোকানে প্রবেশ করে কয়েকজন পুরুষ। ওরাই যে চোর তা সিসি ক্যামেরা না থাকলে বোঝাই যেতো না। নগদ ৫০ হাজার টাকা চুরি করে সটকানোর পর ম্যানেজার আলমগীর হোসেন টাকা ভজাতে না পেরে সিসি ক্যামেরায় ধারণকৃত ফুটেজ দেখতে শুরু করেন, তখনই ধরা পড়ে ক্রেতা সেজে দোকানে প্রবেশ করা চোরের চুরির দৃশ্য।
কয়েকজনের সঙ্গবদ্ধ চোরের একজন একটি ব্যাগ নিয়ে ম্যানেজারের ডানপ্রান্তে ঢুকে চাল দেখতে শুরু করেন। এ সময় কয়েকজন নারী ক্রেতা দোকান থেকে বের হতেই দোকানের সড়ক প্রান্তে কয়েকজন দাঁড়িয়ে থাকা ক্রেতাদের মধ্যে একজন সেদিকেই যাতে ম্যানেজার চোখ রাখে সেই চেষ্টা করতে থাকেন। আর এই সুযোগে মানেজারের ডান প্রান্তে থাকা ব্যাগ হাতে নেয়া লোকটা টেবিলের ড্রয়ারের ওপর ব্যাগটি রেখে নিচ দিয়ে ড্রয়ারে হাত দিয়ে টাকা তুলেই উঠে পড়ে। বাইরের দিকে খোদ্দের সেজে থাকা প্রতারক চোরের সহযোগীর দিকে তাকিয়ে থাকা ম্যানেজার যখন ড্রয়ার আটকান তার আগেই চোর বের হয়ে যায় দোকান থেকে। পরে ঘোর কাটে ম্যানেজারের।
জানা গেছে, চুয়াডাঙ্গার বিশিষ্ট কাপড় ও পরিবহন ব্যবসায়ী আবুল কালামের ফেরিঘাট রোডে রয়েছে একটি চালের দোকান। সুগন্ধা নামের চালের দোকানে গতকাল দুপুরে ম্যানেজার জাহাঙ্গীর হোসেনই সব সামলাচ্ছিলেন। এ সময় চোর ঢুকে ড্রয়ার থেকে ৫০ হাজার টাকা চুরি করে নিয়ে পালিয়ে যায়। পরে মালিকপক্ষ ফুটেজ দেখে চোর শনাক্ত করেন। চোরের ছবি সরবরাহের পাশাপশি চোরচক্রের সদস্যদের ধরে দিতে পারলে পুরস্কার দেয়া হবে বলেও মালিকপক্ষ ঘোষণা দেয়।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *