চুয়াডাঙ্গায় এনজিও ব্যুরোর পরিচালক হেলাল উদ্দিন

 

আত্মবিশ্বাস শুধু ক্ষুদ্রঋণ কার্যক্রম নিয়ে ব্যস্ত

কোন সামাজিক কাজের সাথে অবদান নেই

স্টাফ রিপোর্টার: এনজিও ব্যুরোর পরিচালক যুগ্মসচিব হেলাল উদ্দিন বলেছেন, চুয়াডাঙ্গায় কর্মাকালীন সময়ে আত্মবিশ্বাস এনজিওকে বড় এনজিও হিসেবে জেনে ছিলাম। কিন্তু এনজিও ব্যুরোতে গত দু বছরের কর্মকালীন সময়ে জেনেছি এনজিওটি ব্যুরো থেকে কোনো তহবিল নেয়নি। আত্মবিশ্বাস শুধু ক্ষুদ্রঋণ কার্যক্রম নিয়ে ব্যস্ত, কোনো সামাজিক কাজের সাথে অবদান নেই। কারণ এনজিও ব্যুরো থেকে যারা তহবিল নেই তা অসহায় মানুষের মাঝে সম্প্রদান করা হয়। অর্থাৎ ফি ছাবিলিল্লাহ হিসেবে দিতে হয়, কোন ফেরত পাওয়ার আসায় নয়।

গতকাল রোববার বেলা ১১টার দিকে চুয়াডাঙ্গা জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে এনজিও বিষয়ক মাসিক সমন্বয় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে হেলাল উদ্দিন উপরোক্ত মন্তব্য করেন।

হেলাল উদ্দিন আরো বলেন, পরপর দু মাস এনজিও সভায় কোনো এনজিওর প্রতিনিধি অনুপস্থিত থাকলে সে এনজিওর নিবন্ধন বাতিল করা হবে। দেশের ২হাজার ৩শ ৫০টি রেজিস্ট্রার এনজিও থাকলেও কাজ করে মাত্র ২শ-২শ ৫০টি। ডিসি ও ইউএনওরা এনজিও ব্যুরোর স্থানীয় প্রতিনিধি।   দেশ বিদেশের কোনো তহবিল থেকে উন্নয়নমূলক কাজ করতে হলে অবশ্যই জেলা প্রশাসক ও ইউএনওদের সাথে পরামর্শ এবং তাদেরকে অবগত করতে হবে। জেলায় ৩৭ থেকে ৪০টি এনজিও কাজ করলেও কার কী কাজ তা কেউই জানেনা। আগামীতে মাসিক সভায় একেকমাসে একেক এনজিও পাওয়ার পয়েন্টের মাধ্যমে প্রদর্শন করতে হবে। তাহলে একে অপরের কার্যক্রম সম্পর্কে ধারণা পাবে।

জেলা প্রশাসক মো. দেলোয়ার হোসাইনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক ( রাজস্ব) আবু সাঈদ, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কেএম মামুন উজ্জামান, দামুড়হুদা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. ফরিদুর রহমান, জেলা ব্র্যাক ব্যবস্থাপক জাহাঙ্গীর আলম, এনজিও প্রতিনিধি দীন মোহাম্মদ প্রমুখ। এসময় যুব উন্নয়ন অধিদপ্তরের উপপরিচালক জাহিদুল ইসলাম, সমাজ সেবা অধিদপ্তরের উপপরিচালক (ভারপ্রাপ্ত) আতিয়ার রহমান, সিভিল সার্জন প্রতিনিধি ডা. সাইদুর রহমান শামীম, জেলা সমবায় কর্মকর্তা মনজুর কাদেরসহ বিভিন্ন এনজিওর নির্বাহী পরিচালক ও প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন। জেলা প্রশাসক মো. দেলোয়ার হোসাইন সভাপতির বক্তব্যে বলেন, জিও ও এনজিওরা সম্মিলিতভাবে কাজ করলে ২০২১ সালের আগেই দেশটি মধ্যম আয়ের দেশে উন্নীত হবে বাংলাদেশ।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *