চুয়াডাঙ্গার বড়শলুয়ায় দু যুবকের সন্দেহজনক আচরণ : রাইফেল সাদৃশ্য অস্ত্রসহ একজন আটক

স্টাফ রিপোর্টার: চুয়াডাঙ্গার বড়শলুয়া গ্রামে রাইফেল সাদৃশ্য অস্ত্র নিয়ে সন্দেহজনকভাবে চলাফেরার কারণে গ্রামবাসীর হাতে একজন আটক হলেও অপর এক যুবক পালিয়ে যেতে সক্ষম হয়েছে। পরে আটক যুবককে পুলিশে সোপর্দ করা হয়েছে।

পুলিশ ও গ্রামবাসী জানায়, গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেল ৩টার দিকে ঝিনাইদহ জেলার সাধুহাটি ইউনিয়নের দশমাইল বুড়াই গ্রামের মুরাদ আলীর ছেলে টুকু (২৭) ও নুরু মোল্লার ছেলে মিজানুর (৩৫) রাইফেল সাদৃশ্য একটি অস্ত্র রেখে দেয় বড়শলুয়া কেএসবি ব্রিকসের সামনে হাসমত আলীর মুদিদোকানে। এ সময় রাইফেল সাদৃশ্য অস্ত্রটি দেখে গ্রামবাসীর মাঝে কৌতূহলের সৃষ্টি হয়। টুকু ও মিজানুরকে উপস্থিত গ্রামবাসী জিজ্ঞাসাবাদ করতে গেলে কৌশলে পালিয়ে যায় মিজানুর। তখন গ্রামবাসী ওই অস্ত্র এবং একটি কালো রঙের পালসার মোটরসাইকেলসহ টুকুকে আটক করে। খবর দেয়া হয় স্থানীয় পুলিশকে। হিজলগাড়ি ক্যাম্প পুলিশের ইনচার্জ এএসআই শরিফুল ইসলাম ঘটনাস্থল থেকে রাইফেল সাদৃশ্য অস্ত্র ও পালসার মোটরসাইকেলসহ টুকুকে ক্যাম্পে নিয়ে আসেন। এ বিষয়ে শরিফুল ইসলাম বলেন, আপাতত দৃষ্টিতে দেখলে আগ্নেয়াস্ত্র বলে মনে হলেও এটি একটি ইয়ারগান নিশ্চিত। তার পরেও বিষয়টি যাচাইবাছাই করার জন্য আটককৃত টুকুকে উদ্ধারকৃত  অস্ত্রসহ থানায় সোপর্দ করা হয়েছে।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *