চুয়াডাঙ্গার নীলমণিগঞ্জে চাঁদাবাজচক্রের অভিনব কৌশল

আতঙ্ক : বাড়ির পাশে দুটি বোমা রেখে মোবাইলফোনে চাঁদা দাবি

 

মোমিনপুর প্রতিনিধি: চুয়াডাঙ্গা জেলা সদরের নীলমণিগঞ্জের এক ডাক্তারের কাছে মোবাইলফোনে চরমপন্থি পরিচয় দিয়ে ২ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করেছে চাঁদাবাজচক্র। গত পরশু শনিবার রাতে মোবাইলফোনে চাঁদা দাবি করার পর চাঁদাবাজ হুমকি দিয়ে জানায়, বাড়ির পাশে ২টি বোমা রেখে গেলাম। নির্দিষ্ট স্থানে বোমা দেখে শঙ্কিত হয়ে পড়েন চিকিৎসক পরিবার।

জানা গেছে, নীলমণিগঞ্জ বাজারের ডাক্তার ইকবাল হোসেনের মোবাইলফোনে গতপরশু শনিবার রাতে নিজেকে লাল পতাকার আঞ্চলিক নেতা বাদশা পরিচয় দিয়ে ২ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে। অজ্ঞাত স্থান থেকে মোবাইলফোনে চাঁদাবাজ হুমকি দিয়ে ডাক্তার ইকবালকে বলে, নির্ধারিত সময়ের মধ্যে ধার্যকৃত চাঁদা না দিলে তোর পরিবারের সবাইকে বোমা মেরে উড়িয়ে দেবো। চাঁদাবাজ হুমকি দিয়ে আরও বলে আমাদের গেরিলারা তোর বাড়ির পাশে ২টি বোমা রেখে গেলো। চাঁদা না দিলে এরকম বোমা দিয়ে তোদের সবাইকে মেরে ফেলবো। গতকাল রোববার সকাল ৬টার দিকে ডাক্তার ইকবাল দেখেন, সত্যি বাড়ির পূর্বদিকে লাল টেপ দিয়ে জড়ানো ২টি বোমা রেখে গেছে। বোমা রাখার সংবাদটি মুহূর্তের মধ্যে এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে মোমিনপুর ইউপি চেয়ারম্যান গোলাম ফারুক জোয়ার্দ্দারসহ এলাকাবাসী ছুটে আসেন। চুয়াডাঙ্গা সদর থানার এসআই কাইয়ুম সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে গতকাল সকাল ৭টার দিকে বোমা ২টি উদ্ধার করে থানায় নেন। এলাকাবাসী জানায়, দীর্ঘদিন থেকে মোমিনপুর ইউনিয়ন সন্ত্রাস ও চাঁদাবাজমুক্ত থাকার পর কীভাবে চাঁদাবাজরা ডাক্তার ইকবালের বাড়ির পাশে বোমা রেখে চাঁদা দাবি করে। ঘটনার পর থেকে ডাক্তার ইকবালের পরিবার চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছে।

Leave a comment

Your email address will not be published.