চুয়াডাঙ্গার দৌলাতদিয়াড়ে চুরির অপবাদে নৈশপ্রহরীকে মধ্যরাতে নির্মম নির্যাতন : দোকানির ছেলে গ্রেফতার

 

স্টাফ রিপোর্টার: চুরির অপবাদ দিয়ে নৈশপ্রহরী মোজাম্মেলকে (৫০) নির্মমভাবে পিটিয়ে আহত করেছে দোকানমালিক রেজাউল ও তার ছেলেসহ কয়েকজন। গতপরশু রাতে চুয়াডাঙ্গা শহরতলী দৌলাতদিয়াড় ভোকেশনাল স্কুল অ্যান্ড কলেজের অদূরে।

গুরুতর আহত মোজাম্মেলকে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তাকে নির্যাতন করার অভিযোগে সদর থানা পুলিশ অভিযুক্তদের মধ্যে রেজাউলের ছেলে শফিকুলকে গ্রেফতার করেছে। নৈশপ্রহরীকে নির্মমভাবে নির্যাতন করে তার দুটি পায়ের মালা গুঁড়িয়ে দেয়া হয়েছে। সারা শরীরেই রয়েছে আঘাতের চিহ্ন।

ঘটনার বর্ণনা দিতে গিয়ে নৈশপ্রহরীর লোকজন বলেছেন, মৃত রেজাউল কাজীর ছেলে মোজাম্মেল হক দীর্ঘদিন ধরে দৌলাতদিয়াড় দক্ষিণপাড়ায় বসবাস করে আসছেন। মাঝে কিছুদিন তিনি চুয়াডাঙ্গা বড়বাজারের পুরাতন গলিতে নৈশপ্রহরী হিসেবে কাজ করেন। পরে তিনি দৌলাতদিয়াড় ভোকেশনালের সামনের দোকানগুলোর নৈশপ্রহরী হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণ করেন। কয়েক মাস আগে দোকানি রেজাউলের দোকানে চুরি হয়। নৈশপ্রহরীকে কর্তব্য অবহেলার দোষে দোষী করে সালিসে তিন হাজার টাকা জরিমানা করা হয়। বেতন পেয়ে নৈশপ্রহরী মোজাম্মেল পরিশোধের প্রতিশ্রুতি দেন। গতপরশু বুধবার দিনে এ টাকা নিয়ে কথা হয়। রাতে রেজাউলের দোকানে আবারও চুরি হয়েছে বলে অভিযোগ তুলে নৈশপ্রহরীকে ধরে বেঁধে বেদম প্রহার করে। দু পায়ের হাটু গুঁড়িয়ে দিয়ে ফেলে রাখে। পরে তাকে তার লোকজন উদ্ধার করে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে ভর্তি করান। এ অভিযোগ থানায় করা হলে পুলিশ গতকালই দোকানি রেজাউলের ছেলে শফিকুলকে গ্রেফতার করে।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *