চুয়াডাঙ্গার দিগড়ি গ্রামে ড্রেজার দিয়ে আবারও অবৈধভাবে তোলা হচ্ছে বালি

ঝুঁকির মধ্যে কবরস্থানসহ ১২ পরিবারের ঘরবাড়ি

 

দিগড়ি থেকে ফিরে আলম আশরাফ: চুয়াডাঙ্গা পৌর এলাকার দিগড়ি গ্রামে অবৈধভাবে বালি উত্তোলন বন্ধ হয়নি। আইন ও প্রশাসনকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে দীর্ঘদিন ধরে বালি উত্তোলনের ফলে ঝুঁকির মধ্যে পড়েছে এলাকার ফসলি জমিসহ, কবরস্থান ও জোয়ার্দ্দারপাড়ার ১২টি পরিবার। এখনই প্রশাসন কোনো উদ্যোগ না নিলে এসব পরিবারের ঘরবাড়ি অচিরেই ভেঙে যাবে বালির গর্তে।

অভিযোগসূত্রে জানা গেছে, চুয়াডাঙ্গা পৌর এলাকার দিগড়ি গ্রামের জোয়ার্দ্দারপাড়ার ১২টি পরিবার খাসজমির ওপর প্রায় ৩০ বছর বসবাস করে আসছে। কয়েক বছর ধরে কৌশলে এসব বাড়িঘরের কোল ঘেঁষে গভীর গর্ত খুঁড়ে বালি উত্তোলন শুরু করেছেন চুয়াডাঙ্গার ঝিনাইদহ বাসস্ট্যান্ডপাড়ার বাবু এন্টারপ্রাইজের স্বত্বাধিকারী বাবু। দিগড়ির সিরাজুল ইসলাম পচার কাছ থেকে এ জমি লিজ নিয়ে তিনি ড্রেজার দিয়ে অবৈধভাবে বালি উত্তোলন করছেন। এ ব্যাপারে এলাকাবাসী গত ১৮ ফেব্রুয়ারি চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কাছে লিখিতভাবে অভিযোগ দাখিল করেছেন।

অভিযোগসূত্রে জানা যায়, বাবু দীর্ঘদিন ধরে ড্রেজার দিয়ে অবৈধভাবে বালি তুলে ব্যবসা করে আসছেন। এ কারণে পাশের গোরস্তান ধসে পড়ার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। আগামী বর্ষা মরসুমে গোরস্তানের কিছু অংশ ধসে পুকুরের মধ্যে চলে আসবে বলে আশঙ্কা করছেন ভুক্তভোগীরা। বালি তুলে মাঠে যাওয়ার রাস্তার ওপরে স্তূপ করে রাখার কারণে কৃষকেরা মাঠে যেতে পারছে না। একটি মাত্র মাঠের রাস্তা বন্ধ হওয়ার কারণে বর্তমানে গোরস্তানের ভেতর দিয়ে কৃষকেরা মাঠে যাতায়াত করছে। বালি উত্তোলনে বাধা দেয়া হলেও প্রভাবশালীরা তা কর্ণপাত করছেন না। অন্যদিকে গ্রামের জোয়ার্দ্দারপাড়াবাসী অভিযোগ করে বলেছে, তারা প্রায় ৩০ বছর ধরে সরকারি খাস জমিতে ঘর বেঁধে বসবাস করছে। কিন্তু যেভাবে গভীর খনন করে বাড়িঘরের কোল দিয়ে ড্রেজার করে বালি উত্তোলন করা হচ্ছে তাতে শিগগিরই বাড়িঘরগুলো ধসে পুকুরে চলে যাবে। কেউ কেউ অভিযোগ করে বলেন, জমির মালিক সিরাজুল ইসলাম পচা জানেন যে তার পুকুরের কোলঘেঁষে রয়েছে অনেক খাস জমি। এই জমি দখল করার জন্যই তিনি বালি উত্তোলনের জন্য জমি লিজ দিয়েছেন। ভুক্তভোগীরা আশু উপজেলা প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন। দৈনিক মাথাভাঙ্গার পক্ষ থেকে চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো. আবুল আমিনের কাছে এ ব্যাপারে জানতে চাওয়া হলে তিনি বলেন অবৈধভাবে বালি উত্তোলনের খবর পেয়েছি। ইতঃপূর্বে দিগড়ির ওই পুকুরে বালি তোলা নিষেধ করা হয়েছিলো। আবার বালি তোলা হচ্ছে বলে লিখিত অভিযোগ পাওয়া গেছে। অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে শিগগিরই ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *