চুয়াডাঙ্গার জ্যেষ্ঠ আইনজীবী জাহাঙ্গীর আলী আর নেই

 

স্টাফ রিপোর্টার: চুয়াডাঙ্গা জেলার জ্যেষ্ঠ আইনজীবী অ্যাডভোকেট জাহাঙ্গীর আলী (৭৬) আর নেই। গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেল তিনটা ১০ মিনিটে চুয়াডাঙ্গা শহরের কেদারগঞ্জ এলাকার বাসভবনে হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন (ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাহি রাজেউন)। মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী এবং তিন ছেলে ও এক মেয়েসহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন। আজ শুক্রবার জুম্মার নামাজের পর চুয়াডাঙ্গা রেলস্টেশন সংলগ্ন জান্নাতুল মাওলা কবরস্থানে মরহুমের নামাজে জানাজা শেষে দাফন কাজ সম্পন্ন হবে। এছাড়া আগামী রোববার জেলা ও দায়রা জজ আদালতে ফুলকোর্ট রেফারেন্স অনুষ্ঠিত হবে।

জেলা আইনজীবী সমিতির আর্কাইভ ও পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, ১৯৪১ সালের পয়লা জানুয়ারি ভারতের নদীয়া জেলার চাপড়া থানার ডুমুরিয়া গ্রামে এক সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি ছয় ভাইয়ের মধ্যে তৃতীয়। তার বাবা মরহুম শরিয়ত উল্লাহ বিশ্বাস। দেশ বিভাগের পর ১৯৫২ সালে সপরিবারে চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদায় স্থায়ীভাবে বসবাস শুরু করেন। ১৯৫৯ সালে দামুড়হুদা পাইলট হাইস্কুল থেকে এসএসসি পাস করেন। এরপর যশোর এমএম কলেজ থেকে ১৯৬১ সালে এইচএসসি ও ১৯৬৩ সালে বিএ পাস করেন। স্বাধীনতার পর ১৯৭৫ সালে ঢাকার একটি কলেজ থেকে এলএলবি পাস করেন এবং ১৯৭৭ সালের ১০ জুন চুয়াডাঙ্গা বারে যোগদান করেন এবং আইনপেশায় নিযুক্ত হন।

মরহুম জাহাঙ্গীর আলীর স্ত্রী চুয়াডাঙ্গা সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের অবসরপ্রাপ্ত জ্যেষ্ঠ সহকারী শিক্ষিকা আনোয়ারা খাতুন, বড় ছেলে আলমগীর আজম বাংলাদেশ বিমানে কর্মরত, মেজ ছেলে মনজুর আলম যশোর টেকনিক্যাল স্কুল অ্যান্ড কলেজের হিসাবরক্ষক, ছোট ছেলে হুমায়ুন কবীর মামুন চুয়াডাঙ্গা জেলা আইনজীবী সমিতির সদস্য এবং একমাত্র মেয়ে দেলোয়ারা আকতার মেহেরপুর সদর উপজেলা চেয়ারম্যান আইনজীবী অ্যাডভোকেট বিজন আহমেদের স্ত্রী।

চুয়াডাঙ্গা জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি সভাপতি অ্যাডভোকেট নুরুল ইসলাম ও সাধারণ সম্পাদক মহ. শামশুজ্জোহা এবং সাবেক সভাপতি এমএম শাহজাহান মুকুল ও সাবেক সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ হেদায়েত হোসেন আসলাম মরহুমের মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন। আজকের জানাজা ও দাফন কাজে অংশ নিতে মরহুমের পরিবারের পক্ষ থেকে সকল আত্মীয়, সহকর্মী ও শুভাকাঙ্ক্ষীদের প্রতি অনুরোধ করা হয়েছে।

Leave a comment

Your email address will not be published.