চুয়াডাঙ্গার কুন্দিপুরে মুখোশধারী ডাকাতদলের হানা : দেড়লাখ টাকার মালামাল লুট :গ্রেফতার১

 

বেগমপুর প্রতিনিধি: চুয়াডাঙ্গা সদরের কুন্দিপুর গ্রামে মুখোশধারী সশস্ত্রডাকাতদল দুবাড়িতে ঢুকে প্রায় দেড় লাখ টাকার মালামাল লুট করে নিয়েগেছে। ঘটনার এক ঘণ্টার মাথায় পুলিশ অভিযান চালিয়ে ডাকাতির সাথে জড়িত একজনকে গ্রেফতার করেছে। পুলিশ ডাকাতি করা মালামাল উদ্ধার করতে না পরলেও ডাকাতির কাজে ব্যবহৃত ২টি হেঁসো উদ্ধার করতে সক্ষম হয়েছে।

জানাগেছে, গত শনিবার রাত ২টার দিকে মুখোশধারী ১৪/১৫ জন সশস্ত্র ডাকাত হানাদেয় চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার বেগমপুর ইউনিয়নের কুন্দিপুর বেলে মাঠপাড়ায়। প্রথমে ডাকাতদল জনাব আলীর ছেলে উজির আলীর বাড়িতে প্রবেশ করে অস্ত্রের মুখে বাড়ির সবাইকে জিম্মি করে নগদ ৬০ হাজার টাকা, আটানা ওজনের ১টি স্বর্ণের চেন, ২টি এক ভরি ওজনের রুপার চেন, ৩টি মোবাইলসেটসহ ২টি পোশাক ভর্তি লাগেজবাক্স লুট করে নেয়। ঈদ উপলক্ষে উজির আলীর বাড়িতে ঢাকা থেকে আত্মীয়স্বজন বেড়াতে আসে। পরে ডাকাতদল পার্শ্ববর্তী ইদ্রিসের ছেলে জয়নালের বাড়িতে হানাদিয়ে ৭ হাজার টাকা, ১ জোড়া সোনার কানের দুল, ১টি মোবাইল এবং শ্যালোমেশিন খোলা যন্ত্রপাতি লুট করে নেয়। খবর পেয়ে ঘটনার পরপরই হিজলগাড়ি ক্যাম্প পুলিশের ইনচার্জ এএসআই মুহিতুর রহমান নেহালপুর পশ্চিমপাড়ায় শুরু করেন অভিযান। প্রথমে নজরুল ইসলাম ওরফে কালামুন্সির বাড়িতে অভিযান চালিয়ে তার ছেলে আব্দুল ওরফে রানাকে বাড়ি না পেয়ে অপর আসামি একইপাড়ার আব্দুল হান্নানের ছেলে সাইদুল ইসলাম ওরফে ছুনি শিকদার (২৫) তার বাড়ি থেকে গ্রেফতার করেন। ডাকাতি হওয়া মালামাল পুলিশ উদ্ধার করতে না পারলেও গ্রেফতারকৃত সাইদুলের স্বীকারোক্তিতে ডাকাতির কাজে ব্যবহৃত ২টি হেঁসো উদ্ধার করে পুলিশ। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে সাইদুল ডাকাতির সাথে জড়িত সকলের নাম পুলিশের নিকট বলেছে। গ্রেফতারের স্বার্থে পুলিশ তাদের নাম গোপন রেখেছে।

এদিকে ঘটনার পর থেকে নেহালপুর পশ্চিমপাড়া নজরুলের ছেলে আব্দুল, কুন্দিপুর বেলেমাঠপাড়ার অদ্যাক্ষর ই’সহ অনেকেই দিয়েছে গা ঢাকা। পুলিশ ডাকাতি হওয়া মালামাল এবং ডাকাতির সাথে জড়িতদের গ্রেফতারে জাল বিস্তার করেছে। মামলার তদন্তকারী অফিসার এসআই আব্দুল বারী জানান, গ্রেফতারকৃত সাইদুল অনেক গুরুত্বপূর্ণ তথ্য এবং নাম দিয়েছে যা তদন্তের স্বার্থে গোপন রাখতে হচ্ছে।

Leave a comment

Your email address will not be published.