চুয়াডাঙ্গার কমিউনিটি ক্লিনিকগুলো চলছে খেয়াল খুশি মতো : হেলথ কেয়ার প্রোভাইডারদের না পেয়ে ক্ষুব্ধ ডিডি

 

স্টাফ রিপোর্টার: চুয়াডাঙ্গার অধিকংশ কমিউনিট ক্লিনিকই চলছে হেলথ কেয়ার প্রোভাইডারদের খেয়াল খুশি মতো। আর এ ক্ষেত্রে অধিকংশ সময়ই ক্লিনিকগুলো থাকে তালাবদ্ধ অবস্থায়। এতে বিভাগীয় ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ণ হচ্ছে হলেও কর্তৃপক্ষ এদের বিরুদ্ধে তেমন কোনো ব্যবস্থা নেয় না। চুয়াডাঙ্গা পরিবার পরিকল্পনা অফিসের ভারপ্রাপ্ত উপ-পরিচালক রেজাউল করিম এ ঘটনায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন। তিনি স্বীকার করেছেন, কমিউনিটি ক্লিনিকগুলো চলেছে খেয়াল খুশি মতো। সেখানে সাধারণ মানুষ সেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। তিনি লিখিতভাবে ক্লিনিকগুলোর দুর্দশার কথা জানিয়ে বলেছেন, গতকাল শনিবার চুয়াডাঙ্গা জেলা সদরের মোমিনপুর ইউনিয়নের কাথুলী কমিউনিটি ক্লিনিক পরির্শনে যান সকাল ১০টায়। গিয়ে দেখতে পান ক্লিনিকটি তালাবদ্ধ। এ সময় স্থানীয় জনগণ জানান এই ক্লিনিকের হেলথ কেয়ার প্রোভাইডার সরকারি সময়সূচি না মেনে নিজের খেয়াল খুশি মতো  ক্লিনিক পরিচালনা করেন। এরপর তিনি সকাল সোয়া ১০টায় যান চাঁদপুর কমিউনিটি ক্লিনিকে। সেখানেও দেখেন অভিন্ন চিত্র। ক্লিনিক সংলগ্ন বিদ্যালয়ের এক কর্মচারী জানালেন এটিও চলে খেয়াল খুশি মতো। অথচ এদের অফিসের সময় সকাল ৯টা থেকে বিকেল ৩টা পর্যন্ত। এতে পরিবার পরিকল্পনার অফিসের উপ-পরিচালক বর্তমান সরকারের  অগ্রাধিকার পাওয়া এই প্রতিষ্ঠানের কর্মচারীদের গাফিলতিতে চরম অসন্তোষ ও ক্ষোভ প্রকাশ করেন। একই সাথে ক্লিনিক পরিচলনায় নিয়োজিত কর্মচারীদের সময়সূচি অনুযায়ী দায়িত্ব পালনের জন্য নির্দেশ দেন এবং বিষয়টি চুয়াডাঙ্গা সিভিল সার্জনকে জানান। তবে বেলা ১১টা ২০ মিনিটের দিকে আলমডাঙ্গার বাড়াদী ইউনিয়নের নতিডাঙ্গা কমিউনিট ক্লিনিকে গিয়ে কর্মরত হেলথ কেয়ার প্রোভাইডারদের সেবা দেয়া দেখে সন্তোষ প্রকাশ করেন উপ-পরিচালক। সর্বশেষ তিনি পার্শ্ববর্তী নতিডাঙ্গা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় এবং নতিডাঙ্গা আশ্রয়ণ প্রকল্প পরিদর্শন করেন।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *