চালাক চাঁদপুরের নাসিরকে কুপিয়ে খুন করে আলগামন ছিনতাই

মেহেরপুর অফিস: চুয়াডাঙ্গা থেকে মেহেরপুরের বারাদী বাজারের উদ্দেশে রওনা হয়ে পাটকেলপোতা যাত্রী ছাউনীর কাছে যাত্রীবেশী ছিনতাইকারীরা চালক নাসিরউদ্দিনকে (৪২) কুপিয়ে খুন করে শ্যালোইঞ্জিনচালিত আলগামন নিয়ে পালিয়ে গেছে। ঘটনাটি ঘটেছে গতকাল শুক্রবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে। আলগামনচালাক নাসিরউদ্দিন মেহেরপুর সদর উপজেলার পিরোজপুর ইউনিয়নের চাঁদপুর শিশিরপাড়ার ফরজ আলীর ছেলে। তার মৃতদেহ গতরাতে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে রাখা ছিলো। আজ শনিবার ময়নাতদন্ত করা হতে পারে।
নিহতের পরিবার ও স্থানীয় বারাদী ক্যাম্প ইনচার্জ এসআই কার্তিক জানান, চুয়াডাঙ্গা থেকে মেহেরপুর সদর উপজেলার বারাদী বাজার যাবার নামে ৪ যাত্রী তার আলগামনে উঠে। আলগামনটি পাটকেলপোতা যাত্রী ছাউনীর কাছে পৌঁছুলে যাত্রীবেশী ছিনতাইকারীরা আলগামনটি কেড়ে নিয়ে পালাবার চেষ্টা করে। ওই সময় আলগামনের চালাক নাসিরউদ্দিনকে ছিনতাইকাজে বাধা দিলে তারা নাসিরউদ্দিনকে কুপিয়ে রক্তাক্ত জখম করে আলগামনটি নিয়ে পালিয়ে যায়। পথচারীরা মুমুর্ষ নাসিরউদ্দিনকে উদ্ধার করে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে নেয়। হাসপাতালে কর্তব্যরত ডা. নাজমুল হুসাইন তাকে মৃত ঘোষণা করেন।
আলগামনচালাক নাসিরউদ্দিন ফজর আলীর ৪ ছেলে ও ২ মেয়ের মধ্যে বড়। নাসিরউদ্দীন ১ ছেলে ২ মেয়ের জনক। দীর্ঘ ১৫-১৬ বছর ধরে তিনি মেহেরপুর-চুয়াডাঙ্গা সড়কে আলগামন চালাতেন। এ ব্যাপারে মেহেরপুর সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আহসান হাবিব জানান, নিহতের পরিবারের পক্ষ থেকে অভিযোগ গ্রহণ করা হবে। ইতোমধ্যে পুলিশ ছিনতাইকারীদের আটক ও আলগামনটি উদ্ধারে মাঠে নেমে পড়েছে।
এদিকে নাসিরউদ্দীনের মৃতদেহের পাশে থাকা নিকটজনেরা ঘটনার বর্ণনা দিতে গিয়ে বলেছেন, পাটকেলপোতা যাত্রী ছাউনির নিকট ছিনতাইকারীরা মাঝে মাঝেই ওত পেতে বসে থাকে। এবার শুনছি ছিনতাইকারীরা নাসিরের আলগামনযোগেই যাচ্ছিলো। কুপিয়ে ফেলে রেখে আলগামন নিয়ে পালিয়ে যায়। বাম হাতে ৩টি ও পিঠে একটি কোপে গুরুতর জখম হয়। দীর্ঘ সময় পড়ে থাকে। চিকিৎসক ডা. রাজিবুল ইসলাম বলেছেন, প্রচুর রক্তক্ষরণে রোগী হাসপাতালে নেয়ার আগেই মারা গেছে।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *