ঘরে বিদ্যুত স্পৃষ্ট হয়ে ৪র্থ শ্রেণির ছাত্রীর মর্মান্তিক মৃত্যু

চুয়াডাঙ্গার জাফরপুরে স্কুল থেকে বাড়ি ফিরে ভাত খাওয়া হলো না বৈশাখীর

 

স্টাফ রিপোর্টার: ঘরের মেঝে ঝাড়ু দিয়ে গিয়ে বাকশের সাথে বিদ্যুত স্পৃষ্ট হয়ে নিহত হয়েছে চতুর্থ শ্রেণির ছাত্রী বৈশাখী। গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার জাফরপুর গ্রামে মর্মান্তিক এ ঘটনা ঘটে। সন্ধ্যায় গ্রামের কবর স্থানে বৈশাখীর দাফন সম্পন্ন হয়েছে। এ ঘটনায় জাফরপুরে এক হৃদয় বিদারক দৃশ্যের অবতারণা হয়।

চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার শহরতলীর জাফরপুর স্টেডিয়ামপাড়ার দরিদ্র বাদাম বিক্রেতা খলিলুর রহমান ওরফে খলিলের বড় মেয়ে বৈশাখী (৯) স্থানীয় নূরনগর-জাফরপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের চতুর্থ শ্রেণির ছাত্রী। গতকাল দুপুরে সে স্কুল থেকে বাড়ি ফিরে মায়ের কাছে ভাত চায়। এ সময় তার মা বন্যা খাতুন তাকে ঘরটা ঝাড়ু দিয়ে এসে ভাত খেতে বলে। বেলা ২টার দিকে দিকে বৈশাখী তাদের কাঁচা ঘরের মেঝে ঝাড়ু দিতে ঘরে ঢোকে। আধাঘণ্টা পরে তার মা তাকে ডাক দিলে কোনো সাড়া পান না। তিনি ঘরে ঢুকে দেখতে পান মেয়ের লাশ। মা বন্যা খাতুন চিৎকার দিয়ে কেঁদে ওঠেন। পরে এলাকার লোকজন ছুটে এসে তাকে হাসপাতালে নেয়। কর্তব্যরত চিকিৎসক বৈশাখীকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বৈশাখীদের ঘর ওয়াইরিং করা নয়। বিদ্যুতের তার ঝুলন্ত অবস্থায় ছিলো। তার ছিড়ে বাকশের ওপর পড়লে বাকশটি বিদ্যুতায়িত হয়ে যায়। ঘর ঝাড়ু দেয়ার সময় ওই বাকশে হাত দিলে সে বিদ্যুতস্পৃষ্ট হয়ে ঘটনাস্থলেই মারা যায়। সন্ধ্যায় গ্রামের জামে মসজিদ সংলগ্ন কবর স্থানে তার দাফন সম্পন্ন হয়। শিশু বৈশাখীর মৃত্যুতে এলাকায় শোকের ছায়া নেমে আসে।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *