গাজীপুরে অগ্নিদগ্ধ পরিবারে রইলো আর একজন

স্টাফ রিপোর্টার: গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলায় গত সোমবার রাতে গ্যাসের আগুনে দগ্ধ এক পরিবারের পাঁচজনের মধ্যে চারজনই মারা গেলেন। গতকাল শনিবার সকালে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে মারা যান পরিবারের চতুর্থ সদস্য রিন্টু পাল (২৮)। এর আগে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় এ হাসপাতালে সুভাষ চন্দ্র পালের (৫৫) মৃত্যু হয়েছিল। গত শুক্রবার ভোরে ও দুপুরে মারা যান সুভাষের স্ত্রী রিনা পাল (৪৫) ও মেয়ে রুমকি পাল (১৫)। এ পরিবারের অবশিষ্ট সদস্য রইলেন সুমন পাল (১৭)। তিনিও এ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন। ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল পুলিশ ফাঁড়ির পরিদর্শক মোজাম্মেল হক জানান, গতকাল শনিবার সকালে বার্ন ইউনিটে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রিন্টুর মৃত্যু হয়। গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলার সফিপুর এলাকায় সোমবার গভীর রাতে গ্যাসের আগুনে সুভাষ পালের পরিবারের এ পাঁচ সদস্য দগ্ধ হন। ওই বাড়ির মালিক আবুল হোসেন জানান, সুভাষ চন্দ্র দীর্ঘদিন ধরে পরিবার নিয়ে তার বাড়িতে ভাড়া থাকতেন। সোমবার রাতের রান্নার কাজ শেষে গ্যাসের চুলা খুলে রেখেই ঘুমিয়ে পড়েন তারা। ঘরের দরজা জানালা বন্ধ থাকায় বাসার সবগুলি রুমে গ্যাস ছড়িয়ে পড়ে। রাত ৩টার দিকে সুভাষ চন্দ্র ঘুম থেকে উঠে সিগারেট ধরাচ্ছিলেন। ম্যাচের আগুন জ্বলে ওঠার সাথে সাথে পুরো ঘরে আগুন ধরে যায়। আগুনে সুভাষ পালের ৭০ শতাংশ, স্ত্রী রীনার ৮০ শতাংশ, মেয়ে রুমকির ৯০ শতাংশ পুড়ে যায়। এছাড়া সুমন ও রিন্টুর পুড়েছে শরীরের ২৫ শতাংশ।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *