গাংনী সাহারবাটি ইবাদতখানায় দুই খাদেমকে পেটালো প্রতিপক্ষ

 

গাংনী প্রতিনিধি: মেহেরপুর গাংনী সাহারবাটি ইবাদতখানায় দুই ভক্তকে বেধড়ক পিটিয়েছে স্থানীয় কয়েকজন। গত বৃহস্পতিবার সকালে ইবাদতখানার প্রতিষ্ঠাতার কবর জিয়ারত করতে গেলে এ ঘটনা ঘটে। আহত দুই ভক্তকে গাংনী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। এরা হচ্ছেন- ষোলটাকা গ্রামের মৃত আনোয়ার হোসেনের ছেলে হাফিজুর রহমান ও মুনছার আলীর ছেলে আরোজ আলী।

আহত ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, সাহারবাটি ইবাদতখানার প্রতিষ্ঠাতা মসলেম উদ্দীন ২০১৫ সালে পরোলকগমন করেন। এ সুযোগে স্থানীয় কিছু ব্যক্তি ইবাদতখানা সহায়-সম্পত্তি কব্জা করার উদ্দেশে মোসলেম উদ্দীনের পরিবারের সদস্যদের সেখান থেকে বিতাড়িত করেন। অথচ মৃত্যুর আগে তিনি সহায়-সম্পত্তি ও ইবাদতখানা পরিচালনার জন্য বড় ছেলে মাসুদ সরকার রিপনকে নোটারি পাবলিকের মাধ্যমে লিখিত ঘোষণাপত্র দিয়েছিলেন। রিপনকে সেখানে প্রতিষ্ঠিত করার জন্য ভক্তরা আদালতের আশ্রয় নেন। এ নিয়ে কয়েক দফা হামলার ঘটনা ঘটে।

এদিকে মাসুদ সরকার রিপনের পক্ষের দুই ভক্ত হাফিজুর রহমান ও আরোজ আলী শবেবরাতের দিনে মসলেম উদ্দীনের কবর জিয়ারত করতে গিয়েছিলেন। এ সময় সাহারবাটি গ্রামের মহি উদ্দীনের ছেলে খোকন মিয়ার নেতৃত্বে ১০-১২ জন লোক তাদের ওপর হামলা করে। বেধড়ক মারপিটের কারণে জ্ঞান হারিয়ে ফেলেন আরোজ আলী। পরে স্থানীয়দের সহায়তায় হাফিজুর ও আরোজ আলী গাংনী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি হন। তবে ভক্তদের ওপর দখলদারদের হামলার ঘটনায় তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদের ঝড় বইছে। গাংনী থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আনোয়ার হোসেন বলেন, এ বিষয়ে এখনো কেউ অভিযোগ কিংবা মামলা দেননি। তবে লিখিত পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

 

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *