গাংনীর হাড়িয়াদহ-মালসাদহ সড়কে জনতার প্রতিরোধের মুখে ৪ ছিনতাইকারীকে গণধোলাই

 

 

গাংনী প্রতিনিধি: ৪ ছিনতাইকারীকে গণপিটুনিশেষে পুলিশে সোপর্দ করেছে জনতা। গতরাত ১০টার দিকে মেহেরপুর গাংনী উপজেলার হাড়িয়াদহ-পূর্ব মালসাদহ সড়কে ছিনতাইকারীদের ধাওয়া করে স্থানীয় জনতা। পরে গাংনী শহরের গো-হাটের সামনে ৪ জনকে আটক করে তারা। এরা হচ্ছে-গোপালনগর গ্রামের সিরাজুল ইসলামের ছেলে খোকন মিয়া (২৪) ও আব্দুল কুদ্দুসের ছেলে রেজাউল ইসলাম (২৫), থানাপাড়ার আফতাব আলীর ছেলে আক্তারুল ইসলাম (৩২) এবং আবুল কালামের ছেলে কাবিরুল ইসলাম (২৩)।

হাড়িয়াদহ গ্রামবাসী সূত্রে জানা গেছে, মাঝেমধ্যে ওই সড়কে ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটে। তাই গ্রামবাসী রাতে চলাচলের সময় সংঘবদ্ধ থাকেন। গতরাতে একটি শ্যালোইঞ্জিন চালিত শক্তিমানযোগে হাড়িয়াদহ গ্রামের ১৮ জন গাংনী শহরের দিকে আসছিলেন। হাড়িয়াদহ-পূর্ব মালসাদহ গ্রামের মাঝামাঝি স্থানে পৌঁছুলে তারা দেখতে পান সড়কের ওপর গাছ ফেলা। তাদের বহনকৃত যানটি থামতেই কয়েকজন ছিনতাইকারী তাদের ওপর আক্রমণের চেষ্টা করে। কিন্তু তারা উল্টো প্রতিরোধ করে ছিনতাকারীদের মারধর করে। এতে পালিয়ে যায় ছিনতাইকারীরা। এখবর হাড়িদহ গ্রামে পৌঁছুলে শ’ শ’ মানুষ লাঠিসোঁটা নিয়ে ঘটনাস্থলে এসে জড়ো হয়। তারা চারদিকে খোঁজাখুঁজি শুরু করে। এক পর্যায়ে গাংনী পৌর গো-হাটের কাছে এসে ৫ জনকে আটক করেন হাড়িয়াদহ গ্রামের লোকজন। কিন্তু কৌশলে গোপালনগর গ্রামের মহিবুল ইসলামের ছেলে লিটন হোসেন (২৩) পালিয়ে যায়।

ছিনতাইকারী আটকের খবর পেয়ে চারদিক থেকে লোকজন এসে ঘটনাস্থলে জড়ো হয়। জনরোষে পড়ে ছিনতাইকারীরা। কয়েকজনকে দেয়া হয় গণপিটুনি। এক পর্যায়ে গাংনী থানা পুলিশের কাছে ৪ জনকে সোপর্দ করা হয়। ৪ জনের মধ্যে খোকন ও রেজাউলকে গাংনী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে রাতেই থানায় নেয় পুলিশ।

হাড়িয়াদহ গ্রামের কয়েকজন জানান, ছিনতাই চেষ্টাকালে গ্রামবাসী ছিনতাইকারীদের লাঠি দিয়ে আঘাত করেন। গো-হাটের সামনে থেকে আটকের সময় খোকনের মুখে লাঠির আঘাতের চিহ্ন পাওয়া যায়। এতে গ্রামবাসী নিশ্চিত হয় তারাই ছিনতাইকারী।এদিকে রাতেই আটক ও ছিনতাইস্থল পরিদর্শন করেন মেহেরপুর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আজবাহার শেখ ও গাংনী থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রিয়াজুল ইসলাম। ছিনতাইকারীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির প্রতিশ্রুতিতে গ্রামবাসীকে গ্রামে ফিরিয়ে দেন। প্রাথমিকভাবে আটককৃতদেরকে ছিনতাইকারী হিসেবে শনাক্ত করে জিজ্ঞাসাবাদের পাশাপাশি তাদের নামে মামলা করা হবে বলে জানান গাংনী থানার ওসি। সেইসাথে পলাতক লিটকে গ্রেফতারে অভিযান চলছে বলেও জানান তিনি।

Leave a comment

Your email address will not be published.