গাংনীর পশ্চিমমালসাদহে রাতপাহারাদারদের লক্ষ্য করে ককটেল নিক্ষেপ

গাংনী প্রতিনিধি: মেহেরপুর গাংনী উপজেলার পশ্চিম মালসাদহ গ্রামে ককটেল নিক্ষেপ করে গ্রামবাসীর প্রতিরোধের মুখে পড়েছে দুর্বৃত্তরা। গ্রামবাসীর ধাওয়া খেয়ে পালিয়ে যায় ককটেল নিক্ষেপকারীরা। গতকাল সোমবার রাত ১১টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, পশ্চিম মালসাদহ গ্রামের আব্বাস আলীর বাড়ির সামনে রাস্তার পাশে গ্রামবাসীর তৈরি একটি মাচান রয়েছে। সেখানে প্রায় ২৪ ঘণ্টা স্থানীয় মানুষের উপস্থিতি থাকে। গরু ও বাড়িঘরের নিরাপত্তার জন্য ওই পাড়ার লোকজন গভীর রাত অবধি মাচানে পাহার করে থাকেন।
প্রত্যক্ষদর্শীরা বলেন, ঘটনার সময় অজ্ঞাত ৩-৪ জন মাচানের কাছাকাছি এসে গালিগালাজ শুরু করে। ‘মাচানে কারা’ জানতে চেয়ে গালিগালাজ করে। একপর্যায়ে আমাদের লক্ষ্য করে একটি ককটেল নিক্ষেপ করে। বিকট শব্দে ককটেলটি বিস্ফোরিত হলেও কারো গায়ে লাগেনি। ককটেলে নিক্ষেপ করলে আমরা চিৎকার দিলে পাড়ার লোকজন ছুটে এসে। ৩০-৪০ জন একত্রিত হয়ে তাদের ধাওয়া করি। কিন্তু তারা পশ্চিম মালসাদহ-গাংনী উত্তরপাড়া-হিজলবাড়িয়া মাঠে নেমে দৌঁড়াতে থাকে। আমরা দৌঁড়ে বেশ কিছু দূর এগিয়ে গেলে তারা অন্ধকারে মিলে যায়। এদিকে খবর পেয়ে গাংনী থানা পুলিশের একটি দল গ্রামবাসীর সাথে যুক্ত হয়ে দুর্বৃত্তদের খুঁজতে মাঠে নামে।
স্থানীয় সূত্রে আরো জানা গেছে, ককটেল নিক্ষেপ যারা করেছে তারা ছিঁচকে চোর হতে পারে। এর আগে আব্বাসের বাড়ি থেকে জিনিসপত্র চুরি করে। গ্রামের লোকজন পাহারা করার কারণে তাদের চুরিদারিতে সমস্যা হতে পারে। এ কারণে তারা ভীতি সৃষ্টি করছে। কিন্তু গ্রামবাসীর সাহসি ভূমিকার কারণে তা ভেস্তে গেছে।
গাংনী থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আনোয়ার হোসেন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে বলেন, ছিঁচকে চোর হোক কিংবা অন্য কোনো খারাপ উদ্দেশে নিয়ে যারাই আসুক তাদের দ্রুত গ্রেফতার করা হবে। ঘটনার পর থেকেই অভিযান শুরু হয়েছে।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *