গাংনীতে আলগামনের সাথে মুখোমুখি সংঘর্ষে মোটরসাইকেল চালক নিহত

গাংনী প্রতিনিধি: মেহেরপুর গাংনীতে সড়ক দুর্ঘটনায় কাফিরুল ইসলাম (৪৫) নামের এক মোটরসাইকেল চালক নিহত হয়েছেন। মেহেরপুর-কুষ্টিয়া সড়কের গাংনী উপজেলার তেরাইল নামক স্থানে গতকাল মঙ্গলবার সকালে শ্যালোইঞ্জিনচালিত অবৈধ যান আলগামন ও মোটরসাইকেলের মুখোমুখি সংঘর্ষের ঘটনায় কাফিরুল নিহত হন। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন কাফিরুল ইসলামের ছেলে রওনক আহম্মেদ (১৮)। নিহত কাফিরুল ইসলাম এ উপজেলার দক্ষিণ ভরাট গ্রামের মৃত জেদ আলীর ছেলে। একমাত্র ছেলে রওনক আহম্মেদ বাংলাদেশ ক্রীড়া শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের (বিকেএসপি) বাস্কেটবল বিভাগের ছাত্র।
স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, কাফিরুল ইসলাম ছেলেসহ মোটরসাইকেলযোগে জোড়পুকুরিয়া বাজারে ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের দিকে যাচ্ছিলেন। তেরাইল-জোড়পুকুরিয়া ডিগ্রি কলেজ ও জোড়পুকুরিয়া বাজারের মাঝামাঝি স্থানে পৌঁছান। এ সময় বিপরীত দিক থেকে আসা একটি দ্রুত গতির আলগামনের সাথে মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে গুরুতর আহত হন কাফিরুল ইসলাম ও তার ছেলে রওনক। তারা রাস্তায় লুটিয়ে পড়লে পালিয়ে যায় আলগামন চালক। পরে স্থানীয় লোকজন ছুটে গিয়ে পিতাপুত্রকে উদ্ধার করে গাংনী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে প্রেরণ করে। মাথা ও বুকে গুরুতর আঘাতপ্রাপ্ত কাফিরুলের অবস্থা ছিলো আশঙ্কাজনক। অপরদিকে তার ছেলের পায়ের আঘাতও গুরুতর। তাই কর্তব্যরত চিকিৎসকরা দুজনকেই কুষ্টিয়া মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার করেন। দুপুর বারোটার দিকে কুষ্টিয়া মেডিকেলে চিকিৎসাধীন অবস্থায় কাফিরুল শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। মরদেহ ময়নাতদন্ত শেষে রাত সাড়ে নয়টার দিকে নিজ গ্রামে জানাজা শেষে দাফন সম্পন্ন হয়। তার ছেলে আশঙ্কামুক্ত বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা। এদিকে পালিয়ে যাওয়া আলগামনচালকের নাম শাহীন বলে জানা গেছে। সে গাড়াডোব গ্রামের গোলাম রসুলের ছেলে বলে বিভিন্ন সূত্রে জানা গেছে। তার বিষয়টি খতিয়ে দেখে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি স্থানীয়দের।
গাংনী থানার ওসি আনোয়ার হোসেন বলেন, দুর্ঘটনার জন্য দায়ী আলগামনচালককে আটকের চেষ্টা চলছে। তবে পরিবার থেকে এখনও কোনো অভিযোগ দেয়নি।

Leave a comment

Your email address will not be published.