গরু বিক্রির ৯৫ হাজার টাকাসহ নিখোঁজ : অজ্ঞান অবস্থায় উদ্ধারের পর মৃত্যু

ঢাকায় গরু বিক্রি করতে গিয়ে লাশ হয়ে ফিরলেন চুয়াডাঙ্গা আলমডাঙ্গার কুঠিপাইকপাড়ার মিণ্টু

 

স্টাফ রিপোর্টার: ঢাকায় গরু বিক্রি করে ফেরার পথে অজ্ঞানপার্টির খপ্পরে পড়ে লাশ হয়ে বাড়ি ফিরলেন চুয়াডাঙ্গা আলমডাঙ্গার কুঠিপাইকপাড়ার মিণ্টু (৫৫)। গতকাল বুধবার সকালে তার নিজ গ্রামে দাফন কাজ সম্পন্ন করা হয়েছে।

ঢাকায় গরু বিক্রি করে ৯৫ হাজার টাকা নিয়ে ঈদের একদিন আগে তিনি তার দুভাই ও গ্রামের বেশ কয়েকজনের সাথে বাড়ি ফেরার পথে ঢাকাতেই নিঁখোজ হন। সাথে থাকা সকলে বাড়ি ফিরলেও মিণ্টু নিখোঁজই থেকে যান। ঈদের দুদিন পর টিভিতে ঢাকা বনানীর রেললাইনের পাশ থেকে অজ্ঞান অবস্থায় এক ব্যক্তিকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেলে ভর্তির খবর সম্প্রচারিত হয়। এ খবরে মিণ্টুর নিকটাত্মীয়স্বজন ঢাকা মেডিকেলে ছুটে যান। মিণ্টুর চিকিৎসার তদারকি করতে থাকেন। শেষ পর্যন্ত মিণ্টুকে সুস্থ করে তোলা সম্ভব হয়নি। তিনি গত পরশু মঙ্গলবার মারা যান। তার লাশ পরশু রাতে নিজ গ্রাম চুয়াডাঙ্গা আলমডাঙ্গার পল্লি নবগঠিত আইলহাস ইউনিয়নের কুঠিপাইকপাড়ায় নেয়া হয়। গতকাল বুধবার সকাল ৮টার দিকে নিজ গ্রামের পারিবারিক কবরস্থানে দাফন কাজ সম্পন্ন করা হয়।

কুঠিপাইকপাড়ার মৃত তোরাপ মণ্ডলের ছেলে মিণ্টু ঈদের চারদিন আগে গত ১২ অক্টোবর একটি গরু নিয়ে গ্রামের অন্যদের সাথে ট্রাকযোগে ঢাকায় যান। ঢাকার হাটে তিনি গরুটি ৯৫ হাজার টাকায় বিক্রি করেন। ওই টাকা তার কাছেই ছিলো। সাথে থাকা দু ভাইসহ গ্রামের লোকজনের মাঝ থেকে কখন কীভাবে তিনি নিখোঁজ হয়েছেন তা অবশ্য স্পষ্ট করে জানা সম্ভব হয়নি। পরিবারের সদস্যরা বলেছেন, গ্রামের লোকজন বাড়ি ফিরে বলেন, মিণ্টুকে খুঁজে না পেয়ে আমরা ফিরে এসেছি। মিণ্টু দু ছেলের জনক ছিলেন। তার দু মেয়ে ছিলো। এক মেয়ে আত্মহত্যা করেন, অপর মেয়ে দুর্ঘটনায় প্রাণ হারান।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *