গরিবের সম্পদ ধনীদের দেয়ার বাজেট : সিপিবি

 

স্টাফ রিপোর্টার: প্রস্তাবিত ২০১৫-১৬ অর্থবছরের বাজেটকে প্রত্যাখ্যান করে বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টি দাবি করেছে, এ বাজেট প্রস্তাবনার ভিত্তি হলো পুঁজিবাদের নয়া-উদারবাদী প্রতিক্রিয়াশীল দর্শন।সিপিবি সভাপতি মুজাহিদুল ইসলাম সেলিম ও সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ আবু জাফর আহমেদ বাজেট সম্পর্কে প্রাথমিক প্রতিক্রিয়া জানিয়ে এক বিবৃতিতে এ কথা বলেন। বিবৃতিতে বলা হয়, বাজেট কথার ফুলঝুড়ি ও মিথ্যা আশ্বাসে ভরা এবং লোক দেখানো। এ বাজেটের আসল লক্ষ্য হলো জনগণের ট্যাক্সের টাকায় দেশি-বিদেশি লুটপাটকারীদের পকেট ভারী করা। বাজেটে প্রবৃদ্ধির যুক্তি দেখিয়ে গরিব জনগণের সম্পদ মুষ্ঠিমেয় লুটেরা ধনিকের হাতে প্রবাহিত করার প্রস্তাব করা হয়েছে।বাজেট অবাস্তবায়ন ও অনির্ভরযোগ্য। বিবৃতিতে তারা বলেন, এ বাজেটে সমাজতন্ত্রসহ রাষ্ট্রীয় চার মূলনীতির কোন প্রতিফলন নেই। বাজেটে পরোক্ষ করের পরিমাণ ও মাত্রা বাড়িয়ে এবং বাজেট ঘাটতি মেটানোর জন্য ভবিষ্যত প্রজন্মের কাঁধে বিশাল ঋণের বোঝা চাপিয়ে দিয়ে বাজেটের পরিমাণকে তিন লক্ষ কোটি টাকায় উন্নীত করা হয়েছে। বিবৃতিতে বলা হয়, এই অর্থের বেশিরভাগ খরচ হবে পূর্বেকার ঋণ পরিশোধ, শ্বেতহস্তির মতো বিশাল সিভিল-মিলিটারি প্রশাসনের রক্ষণাবেক্ষণ, বিলাস দ্রব্য আমদানি, অপচয়, দুর্নীতিসহ বিভিন্ন প্রকারের সিস্টেম লস, কর-রেয়াতের নামে ধনিক শ্রেণিকে বিশাল ভর্তুকী প্রদান ইত্যাদি কাজে।

সাধারণ মানুষকে ধোঁকা দেয়ার জন্য কিছু প্রতীকী পদক্ষেপের ছিটেফোঁটা যুক্ত করা হয়েছে।বাজেটকে অনির্ভরযোগ্য ও অবাস্তবায়নযোগ্য প্রস্তাবনায় পরিণত করা হয়েছে। বাজেট প্রস্তাবনাকে সাম্রাজ্যবাদ ও লুটেরা ধনিক শ্রেণির স্বার্থরক্ষার গতানুগতিক দলিল হিসেবে আখ্যায়িত করে তা প্রত্যাখান করেন।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *