খুলানাগামী আন্তঃনগর চিত্রা এক্সপ্রেসে জয়দেবপুর স্টেশনে ছিনতাই

দামুড়হুদা দেউলীর সুমিনা হারালেন নগদ টাকাসহ মূল্যবান মালামাল
স্টাফ রিপোর্টার: খুলানাগামী আন্তঃনগর চিত্রা এক্সপ্রেস নামক ট্রেনে ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটেছে। গতকাল রোববার রাত ৮টার দিকে জয়দেবপুর স্টেশনে এ ঘটনাটি ঘটে। ছিনতাইয়ের শিকার হন দামুড়হুদার দেউলী গ্রামের বিধবা সুমিনা খাতুন। ছিনতাইকারীরা তার কাছে টাকা, মোবাইলফোনসহ মূল্যবান মালামাল ছিনিয়ে নেয় বলে অভিযোগ করেন।
চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদা উপজেলার দেউলী গ্রামের নাজমুলের মেয়ে সুমিনা খাতুনের (৩০) সাথে বিয়ে হয় একই গ্রামের কালুর সাথে। তাদের দাম্পত্য জীবনে আসে পুত্রসন্তান। নাম শামীম। বর্তমানে ছেলেটির বয়স ১০ বছর। কিন্তু ভাগ্যের নির্মম পরিহাসে ৪-৫ বছরের মাথায় মারণব্যাধি ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে মারা যান কালু। বাবা দরিদ্র! রয়েছে একসন্তান। সবকিছুর মোকাবেলা করতেই জীবনযুদ্ধে নেমে পড়েন সুমিনা। একমাত্র সন্তান শামীমকে মায়ের কাছে রেখে যান ঢাকায়। সেখানে গিয়ে ঢাকা গাড়ীপুরে চাকুরী হয় একটা গার্মেন্টেস ফ্যাক্টারীতে। চাকুরীর বেতন পেয়ে টাকা পাঠাতে থাকে ছেলের জন্য। আবার ৪/৫ মাস পর টাকা নিয়ে নিজেই আসে ছেলে ও বাবা-মাকে দেখতে। উদ্দেশ্যে একটা ছেলেকে মানুষের মত মানুষ করতে হবে। ভালাই চলছিলো দিনকাল। অন্যবারের মত গতকাল রোববারও ঢাকা থেকে বাড়ি আসার জন্য ঢাকা জয়দেবপুর খেকে টিকি সংগ্রহ করে। যথাসময়ে ষ্টেশনে হাজির হয়। ট্রেন আসতে বিলম্ব হওয়াই ট্রেনই অপেক্ষা করছিলো সুমিনা। ট্রেন যখন আসে তখন রাত ৮টা মত বাজে। উঠার জন্য ষ্টেশন থেকে ট্রেনে পা দিতেই পিছন থেকে একটা যুবক এসে হাত থেকে ব্যাগ নিয়ে পালিয়ে যায়। তখন ট্রেন দিয়েছে ছেড়ে। আর যুবকটি ব্যাগ নিয়ে পালিয়ে যায়। শুধু চেয়ে চেয়ে দেখে সুমিনা। উপরোক্ত কথা গুলো বর্ণনা দিয়ে তিনি জানান ব্যাগের ভিতর ছিলো ২০ হাজার টাকা ২ টি মোবাইল ও ছেলের কিছু জিনিসসহ আবার ব্যবহার করা সামগ্রী। চিত্রা এক্সপ্রেস যখন চুয়াডাঙ্গা পৌছাই তখন বাহে রাত প্রায় আড়াইটা। ট্রেন থেকে নেমে সুমিনার শুধু দীর্ঘশ্বাস ও চাপা কষ্ট ছাড়া আর কিছু বলছিলো না। কিন্তু তার দেখে মনে হচ্ছিলো যদি তার ব্যাগটি কেউ উদ্ধার করে দিতো। তাহলে তার ছেলের জন্য আনা টাকা ও পোশাকগুলো ফিরে পেতো। দূর হতো দু:শ্চিন্তা।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *