কোদালের কোপে এক শ্রমিক মৃত্যুশয্যায়

চুয়াডাঙ্গা বোয়ালিয়ার মাঠে ধানের পাতু লাগানোর সময় বিরোধ

 

স্টাফ রিপোর্টার: চুয়াডাঙ্গা জেলা সদরের সরোজগঞ্জ বোয়ালিয়ার হানিফের মাথায় কোদাল দিয়ে কোপ মেরে গুরুতর আহত করা হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুর ১২টার দিকে গ্রাম সংলগ্ন চরপাড়া মাঠে ধানের পাতু লাগানোর সময় এ ঘটনা ঘটে। আবুল কাশেমের ছেলে হানিফকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় গতকালই ঢাকার উদ্দেশে নেয়া হয়েছে। গতরাতে শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত হানিফ মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ছিলেন।

ঘটনার বর্ণনা দিতে গিয়ে তার নিকটজনেরা বলেছেন, বোয়ালিয়া গ্রাম সংলগ্ন চরপাড়া মাঠে ধানের পাতু লাগানোর কাজ করছিলেন হানিফ ও একই গ্রামের মঙ্গলের ছেলে শাজাহান ওরফে পংকু। কে কতোটা পাতু লাগিয়েছে তা নিয়ে দুজনের মধ্যে বাগবিতণ্ডা শুরু হয়। এক পার্যায়ে পংকু কোদাল দিয়ে হানিফের মাথায় কোপ মারে। রক্তাক্ত গুরুতর জখম হানিফকে (৩২) উদ্ধার করে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে নেয়া হয়। কর্তব্যরত চিকিৎক প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় যতো দ্রুত সম্ভব ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার পরামর্শ দেন। গতকালই তাকে ঢাকার উদ্দেশে নেয়া হয়েছে। ধানের পাতু লাগানো নিয়েই বিরোধ নাকি আড়ালে অন্য কোন ঘটনা লুকিয়ে আছে তা অবশ্য নিশ্চিত করে জানা সম্ভব হয়নি। হানিফের শারীরিক পরিস্থিতি দেখে তার স্ত্রী কান্নায় ভেঙে পড়েন। তিনিও তাৎক্ষণিক কোনো অভিযোগ করেননি।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *