কোটচাঁদপুরে ১০ টাকার চাল নিয়ে যা হচ্ছে

 

কোটচাঁদপুর প্রতিনিধি: কোটচাঁদপুর উপজেলায় খাদ্য বান্ধব কর্মসূচির তালিকায় ইউপি সদস্যের স্কুল পড়ুয়া ভাইসহ নিকট আত্মীয়-স্বজন ও স্বচ্ছল ব্যক্তিদের নাম রয়েছে। এ বিষয়ে এলাকাবাসী উপজেলা নির্বাহী অফিসার শাম্মী ইসলামের কাছে লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন।

এলাকাবাসীর অভিযোগে জান যায়, উপজেলা এলাঙ্গী ইউনিয়নের ৩নং কাঠালীয়া গ্রামে ২০ ব্যক্তির নামে ১০ টাকা কেজির চালের কার্ড দেয়া হয়। এ তালিকায় ইউপি সদস্য জাহাঙ্গীর হোসেন তার আপন ছোট ভাই ১০ম শ্রেণির ছাত্র জিহাদ হোসেনের নামে কার্ড ইস্যু করা হয়েছে। তার কার্ড নং- ২৮০। কার্ডে জিহাদকে কৃষক উল্লেখ করা হয়েছে। এছাড়াও উক্ত ইউপি সদস্যের নিকট আত্মীয় একরামুল কবির, রিয়াজ উদ্দীন ও ইয়াকুব আলীর নামে আপন ৩ ভাইয়ের কার্ড ইস্যু করা হয়। এদের কার্ড নং- যথাক্রমে- ২৮১, ২৮৩ ও ২৮৫। ইউপি সদস্যের এই ৩ ভাইয়ের ছেলেদের নামেও কার্ড দেয়া হয়েছে। এরা ছাড়াও স্বচ্ছল ব্যক্তি ফারুক হোসেন (কার্ড নং- ২৮৭), হুমায়ন কবির (কার্ড নং-২৯৩) ও হাবিবুর রহমানকে (কার্ড নং- ২৮৮) দেয়া হয়েছে। এলাঙ্গী ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ডে বলাবাড়ীয়া গ্রামে ১০ টাকা চালের কার্ড বিতরণে একই অভিযোগ করা হয়েছে। বলাবাড়ীয়ায় স্বচ্ছল ও ভূয়া নামে কার্ড দেয়া হয়েছে। এরা হলেন মঞ্জুয়ারা (কার্ড নং- ১৩৫), মাসুদ রানা (কার্ড নং- ১৮০), আবদুল মজিদ (কার্ড নং- ২২৮), হায়দার (কার্ড নং- ১৮৮), জাহাঙ্গীর খান (কার্ড নং- ২১৭), হুমায়ন (কার্য নং- ১৫০), রূপা কুমার ও রুপা দাস (কার্ড নং- ২১৮  ২১৫)।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার শাম্মী ইসলাম বলেন, এলাকাবাসী লিখিত অভিযোগ করার পর তদন্ত কমিটি করে রিপোর্ট দিতে বলেছি। রিপোর্ট পাওয়ার পর ব্যবস্থা নেয়া হবে। এলাঙ্গী ইউপি চেয়ারম্যান বলেন, ভিত্তিহীন অভিযোগ করা হয়েছে। তবে কাঠালিয়া ইউপি সদস্য জাহাঙ্গীর হোসেন আপন ভায়ের নামে কার্ড ইস্যুর কথা স্বীকার করে বলেন, আমার প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী শত্রুতা করে লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *