কুড়–লগাছি ঠাকুরপুরের বাকপ্রতিবন্ধী পিতার জমি জাল করে লিখে নিতে ভাই-বোনের মারামারি

 

কুড়লগাছি প্রতিনিধি: কুড়–লগাছি ইউনিয়নের ঠাকুরপুর গ্রামের বাকপ্রতিবন্ধী আব্দুস ছাত্তার মণ্ডলের ১৪ বিঘা জমি তার দু ছেলে আব্দুল কুদ্দুস ও আব্দুস সামাদ জোরপূর্বক জাল করে লিখে নিয়েছে।

জানাগেছে,সাত্তারের রয়েছে ৬ মেয়ে ২ছেলে। প্রায় ১ বছর যাবত সাত্তার বাকপ্রতিবন্ধী অবস্থায় বিছানাগত। তিনি কোনো কথা বলতে ও বুঝতে পারেন না। ফ্যাল ফ্যাল করে মানুষের পানে চেয়ে থাকেন। ৬ মেয়ে তাদের প্রাপ্য অংশ ভাইদের কাছে চাইলেসুচতুর কুদ্দুস ও সামাদ কৌশলে পিতার জমি লিখে নেয়। যাতে আর বোনদের কোনো অংশ না দিতে হয়। এ ব্যাপারে সাত্তারের স্ত্রী হাসিনার কাছে জানতে চাওয়া হলে তিনি বলেন, আমার ছেলেরা আমার বাকপ্রতিবন্ধী স্বামীর কাছ থেকে জমি লিখে নিয়েছে এটা সত্যি। আমারতো কিছুই করার নেই। দু ছেলেকে কতো বার বলেছি বাপ তোরা তোদের বোনদের অংশ বুঝিয়ে দে। কিন্তুশুনছে না। গতকাল রোববার সাত্তারের ৪মেয়ে ও জামাইরা জমি জোর করে লিখে জাল করে নেয়ার ব্যাপারে ভাইদের কাছে জানার জন্য গেলে ছোট ভাই সামাদ হেঁসো দিয়ে কোপ মেরে বোন শরিফার স্বামী রমজান আলীকে এবং তার হাতের ৪টি আঙুল কেটে মাটিতে পড়ে যায়। রমজান আলীকে স্থানীয় জনগণ উদ্ধার করে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে ভর্তি করে। বোন রশিদাকেও মেরে আহত করে। এ ব্যাপারে বোন শরিফা বাদী হয়ে দামুড়হুদা মডেল থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। অপরদিকে ভাই সামাদও বাদী হয়ে একটি অভিযোগ করেন।

এ ব্যাপারে অভিযুক্ত সামাদ ও কুদ্দুস বলেন, আমাদের পিতা আমাদের জমি লিখে দিয়েছেন। এ ব্যাপারে গ্রামের সচেতনমহলের প্রশ্ন, যে ব্যক্তি বাকপ্রতিবন্ধী, নিজেরই চলাফেরা ও কথা বলার সামর্থ্য নেই তিনি কীভাবে জমি লিখে দিলেন।

Leave a comment

Your email address will not be published.