কুমারখালীতে বন্দুকযুদ্ধে সন্ত্রাসী আনোয়ার নিহত ॥ চার পুলিশ সদস্য আহত

কুষ্টিয়া প্রতিনিধি: কুষ্টিয়ার কুমারখালী উপজেলার জয়নাবাদে পুলিশের সাথে বন্দুকযুদ্ধে প্রবাসী রাকিবুল হত্যা মামলার আসামি আনোয়ার হোসেন (৩২) নিহত হয়েছে। গতকাল শুক্রবার ভোররাত ৩টার দিকে বন্দুকযুদ্ধের এ ঘটনা ঘটে। ঘটনাস্থল একটি বিদেশি পিস্তল, ৪ রাউন্ড গুলিসহ ২টি দেশীয় ধারালো অস্ত্র উদ্ধার করে পুলিশ। বন্দুকযুদ্ধে পুলিশের ৪ সদস্য আহত হয়। কুমারখালী থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আব্দুল খালেক জানান, একদল সশস্ত্র সন্ত্রাসী, সন্ত্রাসী কর্মকা- ঘটানোর উদ্দেশে জয়নাবাদ রেললাইনের ধারে অবস্থান করছে। এমন তথ্যের ভিত্তিতে কুমারখালী থানা ও গোয়েন্দা পুলিশের টহল দল সেখানে অভিযান চালায়। পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে সন্ত্রাসীরা পুলিশের গাড়িকে লক্ষ্য করে গুলি চালায়। জবাবে পুলিশ ও পাল্টা গুলি চালালে বন্দুকযুদ্ধের একপর্যায়ে সন্ত্রাসীরা পিছু হটে। এ সময় ঘটনাস্থল থেকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় একজনকে উদ্ধার করে কুষ্টিয়া ২৫০ শয্যা বিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালে নেয়া হলে কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে মৃত ঘোষণা করেন। পরে পরিবারের লোকজন ও স্থানীয়রা আনোয়ার হোসেনকে শনাক্ত করেন। সে কুমারখালী উপজেলার চাপড়া ইউয়িনের নগর সাঁওতা গ্রামের আজমত ওরফে গামলার ছেলে এবং তার বিরুদ্ধে কুষ্টিয়ার বিভিন্ন থানায় অপরাধের একাধিক মামলা ছাড়াও সম্প্রতি সময়ে প্রবাসী রাকিবুল হত্যা মামলার অন্যতম প্রধান আসামি।
উল্লেখ্য, স্ত্রী ও ছোট ভাইয়ের পরকীয়ার সম্পর্কের জের ধরে গত ৫ অক্টোবর বৃহস্পতিবার ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসীরা রাকিবুলকে হত্যা করে স্থানীয় কালীগঙ্গা নদীতে লাশ ফেলে দেয়। হত্যার তিনদিন পর রোববার লাশটি নদী থেকে পুলিশ উদ্ধার করে।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *