কামারুজ্জামানের ফাঁসি স্থগিত চায় যুক্তরাষ্ট্র

স্টাফ রিপোর্টার: আন্তর্জাতিক যুদ্ধাপরাধ ট্রাইবুনালের বিচার প্রক্রিয়ায় আন্তর্জাতিক মানদণ্ড নিয়ে প্রশ্ন থাকায় জামায়াত নেতা মুহাম্মদ কামারুজ্জামানের ফাঁসি স্থগিতের আহ্বান জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। গতকাল সোমবার যুক্তরাষ্ট্রের বৈশ্বিক ফৌজদারি অপরাধ দপ্তরের যুদ্ধাপরাধ বিষয়ক অ্যাম্বাসেডর-এট-লার্জ স্টিফেন জে ৱ্যাপের বরাত দিয়ে মার্কিন স্টেট ডিপার্টমেন্ট এ প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে। এ বিষয়ে স্টেট ডিপার্টমেন্টের দক্ষিণ ও মধ্য এশিয়া বিষয়ক মুখপাত্র রাইয়ান নর্টন বলেন, বাংলাদেশের যুদ্ধাপরাধ ট্রাইব্যুনালের কার্যক্রম নিয়মিত দেখভাল করার দায়িত্বে নিযুক্ত যুক্তরাষ্ট্রের বৈশ্বিক ফৌজদারি অপরাধ দপ্তরের যুদ্ধাপরাধ বিষয়ক অ্যাম্বাসেডর-এট-লার্জ স্টিফেন জে ৱ্যাপ।  অ্যাম্বাসেডর স্টিফেন বর্তমানে দক্ষিণ আফ্রিকায় অবস্থান করছেন। সেখান থেকে কনফারেন্স কলের মাধ্যমে বাংলাদেশের যুদ্ধাপরাধ ট্রাইবুনালের বিচারিক কার্যক্রম সম্পর্কে প্রদত্ত এক বিবৃতিতে তিনি এই আহ্বান জানিয়েছেন।

মুখপাত্র রাইয়ান বলেন, এ বিষয়ে স্টেট ডিপার্টমেন্ট আলাদা কোনো বিবৃতি দেবে না, কেননা অ্যাম্বাসেডর স্টিফেনের বক্তব্যই যুক্তরাষ্ট্র সরকারের বক্তব্য। তিনি বলেন, বাংলাদেশকে মনে রাখতে হবে, যুক্তরাষ্ট্র যুদ্ধাপরাধ বিচার প্রক্রিয়ার পক্ষে। কিন্তু মৃত্যুদণ্ডের মতো সর্বোচ্চ শাস্তি কার্যকরের আগে বিচার প্রক্রিয়া সবদিক দিয়ে অবাধ, মুক্ত ও স্বচ্ছ হতে হবে। গতকালের বিবৃতিতে স্টিফেন বলেন, ২০১৪ সালের আগস্টে বাংলাদেশে আমার পঞ্চম সফরের সময় বলেছি- কিছুটা অগ্রগতি হলেও আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের বিচার প্রক্রিয়ায় দেশীয় ও আন্তর্জাতিক মানদণ্ড রক্ষায় আরও উন্নতি করতে হবে। এ অবস্থায় এ মানদণ্ড নিশ্চিতের বিষয়টি দৃশ্যমান না হওয়া পর্যন্ত অপরিবর্তনযোগ্য সাজা মৃত্যুদণ্ড কার্যকরের উদ্যোগ গ্রহণ না করাই সবচেয়ে ভালো হবে বলে মন্তব্য করেন স্টিফেন ৱ্যাপ।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *