কাজে অকাজে ব্যবহার হচ্ছে সরকারি গাড়ি:প্রতিবছর সরকারের গচ্চা যাচ্ছে কোটি কোটি টাকা

হিসাবসম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ীকমিটির বৈঠকে যানবাহন ব্যবস্থাপনা নিয়ে মহাহিসাবনিরীক্ষক ও নিয়ন্ত্রকেরকার্যালয়ে উপস্থাপিত প্রতিবেদনে

 

স্টাফ রিপোর্টার: সরকারিদায়িত্ব পালনে দায়িত্বশীলদের সরকারি যানবাহন বরাদ্দ দেয়া হলেও কাজে-অকাজেব্যবহার করা হচ্ছে এসব যানবাহন। সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের পাশাপাশি তাদেরপরিবারের লোকজনও নিজেদের কাজে এসব গাড়ি ব্যবহার করে চলেছেন অবাধে। আর গাড়িরএ নিয়ন্ত্রণহীন ব্যবহারে প্রতিবছর সরকারের গচ্চা যাচ্ছে কোটি কোটি টাকা। গতবুধবার জাতীয় সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত সরকারি হিসাবসম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ীকমিটির বৈঠকে যানবাহন ব্যবস্থাপনা নিয়ে মহাহিসাবনিরীক্ষক ও নিয়ন্ত্রকেরকার্যালয়ে উপস্থাপিত প্রতিবেদনে এসব তথ্য তুলে ধরা হয়। কমিটি এ নিয়ে তীব্রক্ষোভ প্রকাশের পাশাপাশি সরকারি গাড়ি ব্যবহার নিয়ন্ত্রণে আনারও সুপারিশকরেছে। কমিটির সভাপতি ড. মহীউদ্দীন খান আলমগীর এতে সভাপতিত্ব করেন। বৈঠকেকমিটির সদস্য মোহাম্মদ আমান উল্লাহ, মো. ইসহাক হোসেন তালুকদার, পঞ্চাননবিশ্বাস, আ.ফ.ম রুহুল হক, মো. আফছারুল আমীন, শামসুল হক টুকু, মঈন উদ্দীনখান বাদল, একেএম মাঈদুল ইসলাম এবং ওয়াসিকা আয়েশা খান উপস্থিত ছিলেন। বৈঠকেচিটাগাং ইউরিয়া ফার্টিলাইজার লিমিটেডের সিবিএ নেতাদের সার্বক্ষণিক গাড়িব্যবহারের বিষয়টি নিয়েও আলোচনা হয়। কমিটি শ্রমিক নেতাদের অবাধে গাড়িব্যবহারের ফলে প্রতিষ্ঠানের যে ক্ষতি হয়েছে তা আদায়ে যথাযথ ব্যবস্থাগ্রহণের সুপারিশ করে। পাশাপাশি ভবিষ্যতে শ্রমিক নেতারা প্রাপ্যতার বাইরেযানবাহন ব্যবহার করলে তার বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণেরও সুপারিশ করেকমিটি। এ ছাড়াও বৈঠকে শিল্প মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন বাংলাদেশ কেমিকেলইন্ডাস্ট্রিজ কর্পোরেশনের অধীন ছয়টি কারখানার যানবাহন ব্যবস্থাপনা বিষয়েআলোচনা হয়। এ সময় মহাহিসাবনিরীক্ষক ও নিয়ন্ত্রকের কার্যালয়ে এ সংক্রান্তপ্রতিবেদন উপস্থাপন করা হয়। প্রতিবেদনে এসব কারখানার সরকারি যানবাহননিয়ন্ত্রণহীনভাবে ব্যবহার করা হচ্ছে বলে অভিযোগ করা হয়েছে। অনেক ক্ষেত্রেসরকারি কাজের বাইরে এসব যানবাহন ব্যবহার করতে গিয়ে জ্বালানি খরচসংশ্লিষ্টপ্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে সরকারি কোষাগার থেকে নেয়া হয়েছে। এতে সরকারের ৮৫ লাখ২৩ হাজার ১৩৭ টাকা অপচয় করা হয়েছে বলেও প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে।

এপ্রসঙ্গে কমিটির সদস্য মঈন উদ্দীন খান বাদল বলেন, বাংলাদেশ কেমিকেলইন্ডাস্ট্রিজ কর্পোরেশনের আওতাধীন কারখানাগুলোতে যানবাহন ব্যবহারে কোনোনিয়ন্ত্রণ নেই। সরকারি টাকা অপচয় করে এসব যানবাহন ব্যবহার করে ব্যক্তিগতকাজ সম্পাদন করছেন সংশ্লিষ্টরা। কমিটি যানবাহন ব্যবহার নিয়ন্ত্রণে আনারসুপারিশ করেছে। পাশাপাশি সরকারি টাকা যারা অপচয় করেছেন তাদের কাছ থেকে টাকাআদায়ের ব্যবস্থা গ্রহণের সুপারিশ করেছে।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *