ঐশীকে জেলহাজতে পাঠাতে নোটিশ

নামের তিরস্কার সইতে না পেরে আত্মহত্যা করেছে ভিকারুননিসা কলেজের একছাত্রী ছাত্রী

স্টাফ রিপোর্টার: পুলিশ (বিশেষ শাখা) পরিদর্শক মাহফুজুর রহমান ও তার স্ত্রী খুনের ঘটনায় গ্রেফতার হওয়া তাদের মেয়ে ঐশী রহমানকে কিশোরী উন্নয়ন কেন্দ্র থেকে জেলহাজতে পাঠাতে আইনি নোটিশ পাঠিয়েছেন এক আইনজীবী। এতে ২৪ ঘণ্টার মধ্যে তাকে কারাগারে পাঠাতে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিতে বলা হয়েছে। অপরদিকে ঐশী নামের তিরস্কার সইতে না পেরে আত্মহত্যা করেছে রাজধানীর ভিকারুননিসা কলেজের ছাত্রী ইশরাত জাহান ঐশী (১৫)।

আইনজীবীসূত্র জানিয়েছে, কুরিয়ার সার্ভিসের মাধ্যমে নোটিশটি ঢাকা মহানগর পুলিশ কমিশনার, গোয়েন্দা পুলিশের ডেপুটি কমিশনার, পল্টন থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা ও তদন্ত কর্মকর্তা বরাবরে পাঠানো হয়। নোটিশে বলা হয়, সম্প্রতি শিশু আইনে আনা সংশোধনী (২০১৩) ঐশীর ক্ষেত্রে প্রযোজ্য হবে না। কারণ ঘটনা ঘটেছে ১৪ আগস্ট। ২১ আগস্ট থেকে সংশোধনীর কার্যকারিতা দেয়া হয়েছে। এতে ভূতাপেক্ষ কার্যকারিতার কোনো বিধানও নেই। এমনকি ঐশীর বয়স ১৮ বছরের বেশি, কিন্তু এর নিচে নয়। ১৯৭৪ সালের শিশু আইন অনুসারে ঐশী প্রাপ্তবয়স্ক এবং শিশুদের সাথে অবস্থান করার অধিকার তার নেই। আগের আইন অনুযায়ী শিশুর অর্থ ১৬ বছরের নিচে এমন কেউ। নোটিশে ঐশীকে কিশোরী উন্নয়ন কেন্দ্রে পাঠানোর ২৪ আগস্টের আদেশ প্রত্যাহার করে ২৪ ঘণ্টার মধ্যে তাকে কারাগারে পাঠাতে বলা হয়। ব্যর্থ হলে হাইকোর্টে রিট করা হবে।

2nd2

এদিকে ঐশী নামের তিরস্কার সইতে না পেরে আত্মহত্যা করেছে রাজধানীর ভিকারুননিসা কলেজের ছাত্রী ইশরাত জাহান ঐশী (১৫)। গতকাল সকালে রাজধানীর এলিফ্যান্ট রোডের ডি-৫, ২৮৫/ই নম্বর বাড়ি থেকে পুলিশ তার লাশ উদ্ধার করেছে। ঐশীর পিতা কেএম ইকবাল বলেন, কিছুদিন ধরে ঐশী নাম নিয়ে তার মেয়ে মানসিক সমস্যায় ভুগছিলো। অনেকেই তার নাম নিয়ে তিরস্কার করছিলো। এরই এক পর্যায়ে গত সোমবার দিবাগত রাতের যেকোনো সময়ে ঐশী ফ্যানের সাথে শাড়ি পেঁচিয়ে আত্মহত্যা করেছে। পরে গতকাল সকালে মেয়ের রুমের দরজা ভেঙে পুলিশ ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করেছে। এ ঘটনায় নিউ মার্কেট থানায় অপমৃত্যু মামলা হয়েছে। মামলার তদন্ত কর্মকর্তা নিউমার্কেট থানার এসআই কামাল হোসেন বলেন, ঐশী নামটি সমাজে নেতিবাচক ধারণার জন্ম দিয়েছে। ঐশী নামে মেয়ের হাতে পুলিশ দম্পতি হত্যাকাণ্ডের পর এ নামটি অপয়া হিসেবে দেখা দিয়েছে। এর জের ধরেই বন্ধু-বান্ধবীদের তিরস্কার সইতে না পেরে ইসরাত জাহান ঐশী ফাঁস লাগিয়ে আত্মহত্যা করেছে। ঐশী ভিকারুননিসা নূন স্কুল অ্যান্ড কলেজ ধানমণ্ডি শাখার একাদশ শ্রেণির ছাত্রী। পারিবারিক সূত্রমতে, পুলিশ দম্পতি হত্যাকাণ্ডের পর পাড়া-প্রতিবেশী থেকে শুরু করে কলেজের বান্ধবীরাও ঐশী নাম ধরে কটূক্তি করতো। নানাভাবে উত্ত্যক্ত করতো। এ বিষয়টি তার বাবা-মাকে জানিয়েও কোনো ফল না পাওয়ায় অভিমান করে সে আত্মহত্যা করেছে। নিউমার্কেট থানার ওসি ইয়াসির আরাফাত বলেন, সকাল সাড়ে আটটার দিকে পুলিশ খবর পেয়ে ঐশীর কক্ষ থেকে ফ্যানের সাথে ঝুলন্ত তার লাশ উদ্ধার করে। পিতার আবেদনে ময়নাতদন্ত ছাড়াই ঐশীর লাশ পরিবারকে হস্তান্তর করা হয়।

Leave a comment

Your email address will not be published.