এসএসসি দাখিল ও সমমান পরীক্ষা শুরু

 

প্রথম দিনে সারাদেশে অনুপস্থিত ৮৫২০ : চুয়াডাঙ্গায় ৩৯ ও মেহেরপুরে ৩২

স্টাফ রিপোর্টার: শুরু হওয়া এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষার প্রথম দিনে সারাদেশে ৮ হাজার ৫২০ জন পরীক্ষার্থী অনুপস্থিত ছিলো। এছাড়া পরীক্ষায় নকলের দায়ে ১৬ পরীক্ষার্থীকে বহিষ্কার করা হয়েছে।  চুয়াডাঙ্গায় অনুপস্থিত ছিলো ৩৯ পরীক্ষার্থী এবং মেহেরপুরে অনুপস্থিত ছিলো ৩২ পরীক্ষার্থী।
গতকাল বৃহস্পতিবার প্রথম দিনের পরীক্ষা শেষে আন্তঃশিক্ষা বোর্ড সমন্বয় সাব-কমিটির সভাপতি অধ্যাপক মাহাবুবুর রহমান স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে এই তথ্য জানানো হয়। এদিন এসএসসিতে বাংলা (আবশ্যিক) প্রথম পত্র, সহজ বাংলা প্রথম পত্র ও বাংলা ভাষা এবং বাংলাদেশের সংস্কৃতি প্রথম পত্রের পরীক্ষা হয়েছে। এছাড়া মাদরাসা বোর্ডের অধীনে দাখিলে কোরআন মাজিদ ও তাজবিদ এবং কারিগরি বোর্ডের অধীনে এসএসসি ভোকেশনালে বাংলা-২, দাখিল ভোকেশনালে বাংলা-২ পরীক্ষা দিয়েছে শিক্ষার্থীরা।
সারাদেশে ৩ হাজার ২৩৬ কেন্দ্রে এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। যাতে অংশ নেয় ১৭ লাখ ৮৬ হাজার পরীক্ষার্থী।

চুয়াডাঙ্গায় এসএসসি, দাখিল ও এসএসসি (ভোকেশনাল) পরীক্ষার প্রথম দিনে বাংলা ১ম পত্রে ৩৯ পরীক্ষার্থী অনুপস্থিত ছিলো। এবারে মোট পরীক্ষার্থীর সংখ্যা ছিলো ১১ হাজার ১৮৯ জন। এরমধ্যে উপস্থিতির সংখ্যা ছিলো ১১ হাজার ১৫০ জন । তবে, কোনো পরীক্ষার্থী বহিষ্কার নেই।

চুয়াডাঙ্গা জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সাধারণ শাখা থেকে জানা গেছে, চুয়াডাঙ্গা জেলার ১৬ পরীক্ষা কেন্দ্রে এএসএসসি পরীক্ষায় মোট পরীক্ষার্থীর সংখ্যা ৮ হাজার ৮৩০ জন। এরমধ্যে উপস্থিত ছিলো ৮ হাজার ৮০৪ জন এবং অনপস্থিত ছিলো ২৬ জন।

চুয়াডাঙ্গা জেলার পাঁচটি পরীক্ষা কেন্দ্রে দাখিল পরীক্ষায় মোট পরীক্ষার্থীর সংখ্যা ১ হাজার ১০৫ জন। এরমধ্যে পরীক্ষায় উপস্থিত ছিলো ১ হাজার ৯৭ জন এবং অনুপস্থিত ছিলো ৮ জন।

চুয়াডাঙ্গা জেলার ৬ পরীক্ষা কেন্দ্রে এসএসসি (ভোকেশনাল) পরীক্ষায় মোট পরীক্ষার্থীর সংখ্যা ছিলো ১ হাজার ২৫৪ জন। এরমধ্যে পরীক্ষায় উপস্থিত ছিলো ১ হাজার ২৪৯ জন এবং অনুপস্থিত ছিলো ৫ জন।

এসএসসি পরীক্ষায় অনুপস্থিত পরীক্ষার্থীদের কেন্দ্রেগুলো হলো, ভি.জে সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ে ১ জন, আলমডাঙ্গা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে ৫, মেমনগর বিডি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে ১, জীবননগর পাইলট মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে ২, মুন্সিগঞ্জ একাডেমিতে ২, চুয়াডাঙ্গা সরকারি বালিকা বিদ্যালয়ে ৬, কার্পাসডাঙ্গা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে ৬, আলমডাঙ্গা পাইলট মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ে ১, আন্দুলবাড়ীয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে ১ এবং উথলী মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয় কেন্দ্রে ১ জন।

দাখিল পরীক্ষায় অনুপস্থিত পরীক্ষার্থীদের কেন্দ্রগুলো হলো, চুয়াডাঙ্গা ফাজিল মাদরাসায় ২, জীবননগর উপজেলা  আলিম মাদরাসায় ৩ এবং আলমডাঙ্গা সিদ্দিকীয়া আলিম মাদরাসায় ৩ জন।

এসএসসি (ভোকেশনাল) পরীক্ষায় অনুপস্থিত পরীক্ষার্থীদের কেন্দ্রগুলো হলো, দামুড়হুদা পাইলট উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়ে ২ এবং আলমডাঙ্গা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে ৩ জন।

এব্যাপারে জানতে চাইলে বাংলাদেশ শিক্ষক-অভিভাবক ফোরাম চুয়াডাঙ্গা জেলা কমিটির সাধারণ সম্পাদক আব্দুল মোত্তালিব জানান, বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীর সংখ্যা কোনো কোনো বিদ্যালয় বেশি দেখিয়ে থাকে শিক্ষকদের বেতনের জন্য। তবে, কেউ কেউ বলেন ছাত্রীদের বিয়ে হয়ে গেছে। যা সঠিক নয়। বিষয়টি তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়ার দাবি করেন তিনি।

এব্যাপারে চুয়াডাঙ্গা জেলা শিক্ষা অফিসার মো. মিজানুর রহমান জানান, পরীক্ষা শান্তিপূর্ণভাবে শেষ হয়েছে। তবে, কি কারণে ৩৯ জন পরীক্ষার্থী অনুপস্থিত ছিলো তা বলতে পারবো না।

মেহেরপুর অফিস জানিয়েছে, প্রথম দিনে মেহেরপুরে এসএসসি, এসএসসি (ভোকেশনাল) ও দাখিল পরীক্ষা শান্তিপূর্ণভাবে সম্পন্ন হয়েছে। প্রথম দিনে জেলায় মাত্র ৩২ জন পরীক্ষার্থী তাদের পরীক্ষায় অংশগ্রহণ থেকে বিরত থাকে। এবছর প্রথম দিনে এসএসসি পরীক্ষায় ৫ হাজার ৭০২ জন অংশগ্রহণ করে। এসএসসি পরীক্ষায় মোট পরীক্ষার্থী ছিলো ৫ হাজার ৭২০ জন।

এসএসসি পরীক্ষার প্রথম দিনে বাংলা ১ম পত্রের পরীক্ষায় মেহেরপুর সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে ৮৯৪ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ৮৯৩ জন অংশগ্রহণ করে। সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে ৬৫৩ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে সবাই অংশগ্রহণ করে। আমঝুপি মাধ্যমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে ৬৮৮ পরীক্ষার্থীর মধ্যে ৮৮৫ জন অংশগ্রহণ করে। গাংনী পাইলট স্কুল ও কলেজ কেন্দ্র থেকে ৪৮৪ জনের মধ্যে ৪৮১ জন অংশগ্রহণ করে। গাংনী পাইলট মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয় কেন্দ্রে ৬৫৩ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ৬৫১ জন, বামুন্দী-নিশিপুর স্কুল অ্যান্ড কলেজ কেন্দ্র থকে ৭৮৫ জনের মধ্যে ৭৮২ জন, জুগিরঘোপা মাধ্যমিক বিদ্যালয় কন্দ্রে ২৫৫ জনের মধ্যে ২৪৪ জন ও সাহেবনগর মাধ্যমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে ১৫০ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ১৪৯ জন উপস্থিত ছিলো। এছাড়া মুজিবনগর মাধ্যমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে ৯৫৮ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ৯৫৪ জন পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করে।

এদিকে এসএসসি (ভোকেশনাল) পরীক্ষায় এবছর ৪ জন এবং দাখিল পরীক্ষায় ১০ জন পরীক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশগ্রহণ থেকে বিরত থাকে। এসএসসি (ভোকেশনাল) পরীক্ষার প্রথম দিনে বাংলা-২ পরীক্ষায় মেহেরপুর সরকারি টেকনিক্যাল স্কুল অ্যান্ড কলেজ কেন্দ্রে ৩৩৩ পরীক্ষার্থীর মধ্যে ৩৩২ জন, গাংনী পাইলট স্কুল অ্যান্ড কলেজ কেন্দ্রে ৪১৫ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ৪১২ জন এবং দারিয়াপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয় মুজিবনগর কেন্দ্রে ১২৫ পরীক্ষার্থীর মধ্যে ১২৪ জন অংশগ্রহণ করে। এছাড়া দাখিল পরীক্ষার প্রথম দিনে কোরআর মাজিদ ও তাজবিদ পরীক্ষায় মেহেরপুর দারুল উলুম আহমদিয়া ফাজিল মাদরাসা কেন্দ্রের ৩৩৯ পরীক্ষার্থীর মধ্যে ৩৩৭ জন ও গাংনী ছিদ্দিকা মাদরাসা কেন্দ্রের ২১৬ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে ২০৮ জন অংশগ্রহণ করে।

জেলা প্রশাসক পরিমল সিংহ, জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আলহাজ গোলাম রসুল, জেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার সুভাষ চন্দ্র গোলদার প্রমুখ পরীক্ষা কেন্দ্র ঘুরে ঘুরে দেখেন এবং সন্তোষ প্রকাশ করেন।

 

 

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *