এনআইডিতে গণপদত্যাগ : সেবা বিঘ্নিত হওয়ার শঙ্কা

স্টাফ রিপোর্টার: চাকরি স্থায়ী না করার প্রতিবাদে গণপদত্যাগ শুরু হয়েছে নির্বাচন কমিশনের জাতীয় পরিচয় নিবন্ধন (এনআইডি) অনুবিভাগে। চলতি মাসের শুরু থেকেই আইডি কার্ড বিতরণ সেবার সঙ্গে সরাসরি যুক্ত টেকনিক্যাল এক্সপার্টরা দলে দলে পদত্যাগ শুরু করেছেন। সোমবার ৪০ টেকনিক্যাল এক্সপার্ট ও সহকারী এক্সপার্ট পদত্যাগ করেছেন। এর আগে চলতি মাসের শুরুতে আরও ৩২ জন পদত্যাগ করেন। সব মিলে মোট ৭২ জন পদত্যাগ করলেন।

আইডেন্টিফিকেশন সিস্টেম ফর এনহ্যান্সিং অ্যাকসেস টু সার্ভিস প্রকল্পে (আইডিইএ) কর্মরত এসব টেকনিক্যাল এক্সপার্ট এনআইডি সংশোধন, স্মার্টকার্ডসহ জাতীয় পরিচয়পত্রের বিভিন্ন সেবা দিয়ে আসছিলেন। দীর্ঘদিন ধরে তাদের চাকরি স্থায়ীকরণের দাবি জানিয়ে আসার পরও তা কার্যকর না হওয়ায় তারা বাধ্য হয়ে এ কাজ করেছেন বলে জানিয়েছেন।

এদিকে গণপদত্যাগের কারণে এনআইডি সেবা মারাত্মক বিঘ্নিত হতে পারে বলে শঙ্কা প্রকাশ করেছেন সংশ্লিষ্টরা। ইসির কয়েকজন কর্মকর্তা জানিয়েছেন, প্রকল্পের এসব কর্মকর্তাদের এনআইডিতে প্রয়োজন। ভোটার তালিকা হালনাগাদ, স্মার্টকার্ড ও এনআইডি সংশোধনসহ গুরুত্বপূর্ণ কাজে তারা সম্পৃক্ত। তাদের মধ্যে অনেক দিন ধরেই অসন্তোষ। এ নিয়ে তারা প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) ও ইসি সচিবের সঙ্গে দেখা করে দাবির কথা জানিয়েছেন। তখন বিষয়টি দেখার আশ্বাসও দিয়েছিলেন এনআইডি মহাপরিচালক। কিন্তু শেষপর্যন্ত কোনো আশ্বাসই বাস্তবায়ন না হওয়ায় গণপদত্যাগ শুরু করে দিয়েছেন তারা।

জানা যায়, ২০০৭ সালে ছবিসহ ভোটার তালিকা প্রণয়ন (পিইআরপি) প্রকল্পে টেকনিক্যাল ম্যানেজার, সহকারী টেকনিক্যাল ম্যানেজার ও টিম লিডার হিসেবে কাজ করে আসছেন ‘টেকনিক্যাল এক্সপার্ট’ পদমর্যাদার প্রায় একশ’ জন। পরবর্তীতে তারা আইডেন্টিফিকেশন সিস্টেম ফর এনহ্যান্সিং অ্যাকসেস টু সার্ভিস প্রকল্পে (আইডিইএ) কাজ করছেন। প্রকল্পের মেয়াদ শেষে তাদের চাকরি রাজস্ব খাতে স্থানান্তরের আশ্বাস দেয়া হয়। কয়েক দফা মেয়াদ বাড়ানোর পর চলতি ফেব্রুয়ারি মাসেই শেষ হচ্ছে এ প্রকল্পের মেয়াদ। সরকারি অর্থায়নে প্রকল্পের মেয়াদ ডিসেম্বর পর্যন্ত বর্ধিত হচ্ছে। এ লক্ষ্যে করা আরডিপিপিতে টেকনিক্যাল এক্সপার্টদের ‘সহকারী প্রোগ্রামার’ও  টেকনিক্যাল সাপোর্টদের ‘ডেটা এন্ট্রি সুপারভাইজার’পদমর্যাদার  গ্রেড প্রদানের দাবি জানিয়ে আসছিলেন তারা।

পদত্যাগকারীদের মধ্যে নাম প্রকাশ না করার শর্তে একাধিক টেকনিক্যাল এক্সপার্ট বলেন, বিগত কাজী রকিব কমিশন ও বর্তমান সিইসি তাদের চাকরি স্থায়ীকরণের কথা বললেও এনআইডির কিছু পদস্থ কর্মকর্তার কারণে তা থমকে আছে। বারবার আশ্বস্ত করা হলেও তা বাস্তবায়ন না হওয়ায় বাধ্য হয়ে তারা পদত্যাগ করছেন।

বেশ কয়েকজন এক্সপার্ট জানান, গত ১০ বছর ধরে প্রকল্পভুক্ত হয়ে কাজ করছেন তারা। কিন্তু বারবার আশ্বাস দিয়েও চাকরি স্থায়ীকরণ এবং রাজস্ব খাতে নেয়া হচ্ছে না। ২৮ ফেব্রুয়ারি প্রকল্পে তাদের চাকরির মেয়াদ শেষ হবে। কর্মকর্তারা লিখিত আবেদনে এনআইডি মহাপরিচালককে জানিয়েছেন, তাদের চাকরি স্থায়ীকরণ এবং রাজস্ব খাতে না নেয়া হলে এবং সরকারি বেতন কাঠামোর সঙ্গে সামঞ্জস্য না করা হলে যেন ২৮ ফেব্রুয়ারির পর তাদের চাকরির মেয়াদ না বাড়ানো হয়।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *